বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

যেখানে উপস্থিত ছিলেন ইউএনওসহ স্থানীয় প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবোর) সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের দাবি, হাওর থেকে দেরিতে পানি নামায় জরিপ, প্রাক্কলন তৈরিসহ অন্যান্য কাজ সময়মতো শেষ না হওয়ায় পিআইসি গঠনের কাজ কিছুটা পিছিয়েছে। কৃষকদের অভিযোগ, ক্ষমতাসীন দলের স্থানীয় কয়েকজন প্রভাবশালী নেতার হস্তক্ষেপে পিআইসি গঠন না করেই বাঁধের কাজ শুরু করে দেওয়া হয়েছে। কৃষকদের বদলে সেসব নেতা তাঁদের ঘনিষ্ঠজনদের এর সঙ্গে যুক্ত করেছেন। এর পেছনে চলছে বিপুল অর্থের লেনদেনও। এমন পরিস্থিতিতে সময়মতো ও টেকসই বাঁধ নির্মাণ নিয়ে চিন্তিত কৃষকেরা। বোরো ফসল রক্ষা নিয়ে শঙ্কিত তাঁরা।

স্থানীয় প্রশাসন ও ক্ষমতাসীন দলের নেতারা কৃষকদের এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তাঁদের ভাষ্য, প্রকৃত কৃষকদের দিয়েই পিআইসি গঠন করা হচ্ছে। কিন্তু কৃষকেরাই বলছেন, পাউবোর কিছু অসাধু কর্মকর্তা ও ক্ষমতাসীন দলের কতিপয় নেতার কাছে জিম্মি হয়ে পড়ছে ফসল রক্ষা বাঁধের পিআইসি গঠন। যথাসময়ে বাঁধের কাজ শেষ না হওয়ার পরিণতিতে ২০১৭ সালের মতো হাওরে কোনো বিপর্যয় ঘটুক আমরা চাই না। কৃষকদের কাছ থেকে পিআইসি নিয়ে নেওয়ার প্রচেষ্টা চলে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। কৃষকেরা নিজেদের খরচে এমনকি ধারকর্জ করে এ বাঁধ নির্মাণ করে থাকেন। কাজ শেষে সরকারি অর্থ পান তাঁরা। কিন্তু সেই অর্থ পেতে মাসের পর মাস লেগে যায়, নানা ধরনের হয়রানি ও ভোগান্তির শিকার হতে হয়। আমরা হাওরে ফসল রক্ষা বাঁধ নিয়ে কোনো অনিয়ম দেখতে চাই না। অসাধু কর্মকর্তা ও ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের চক্র ভেঙে দেওয়া হোক।

সম্পাদকীয় থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন