১ / ১৯
সারা দেশে ডেঙ্গুর প্রকোপ বেড়েছে। মশার লার্ভা ধ্বংস করতে স্প্রে করা হচ্ছে। বেলা সাড়ে ১১টা, পূর্ব গির্জাপাড়া, মৌলভীবাজার, ২৩ জুলাই
ছবি: প্রথম আলো
২ / ১৯
প্রচণ্ড রোদে ছাতা মাথায় দিয়ে মাদ্রাসা ছুটির পর বাড়ি ফিরছে তিন শিশু। কামারখাড়া সেতু এলাকা, বুড়িচং, কুমিল্লা, ২৩ জুলাই
ছবি: এম সাদেক
৩ / ১৯
ত্রিপুরা নারীদের পরনের কাপড় রিনাই। তাঁরা নিজেরাই বোনেন নিজেদের কাপড়। সাজেক হাইস্কুলপাড়া, বাঘাইছড়ি, রাঙামাটি, ২২ জুলাই
ছবি: সুপ্রিয় চাকমা
৪ / ১৯
সারা দেশে ডেঙ্গুর প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় চাহিদা বেড়েছে মশারির। সড়কে ঘুরে ঘুরে মশারি বিক্রি করছেন এই বিক্রেতা। প্রতিটি মশারি আকারভেদে বিক্রি করেন ৩৫০ থেকে ৪৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ছোটরা এলাকা, কুমিল্লা, ২৩ জুলাই
ছবি: এম সাদেক
৫ / ১৯
ঘেরে নেট দিয়ে পুঁটি মাছ চাষ করেছেন এই ব্যক্তি। নেটের মধ্যে পানি ছিটানোর পর খাবার দিচ্ছেন তিনি। বটতলা, জাগুয়া, বরিশাল, ২৩ জুলাই
ছবি: সাইয়ান
৬ / ১৯
প্লেইন শিটের তৈরি ট্রাঙ্ক তৈরি করে রাখা হয়েছে বিক্রির জন্য। ঘরের বিভিন্ন জিনিস রাখার জন্য এই ট্রাঙ্কের চাহিদা আছে। আকার ও মান অনুযায়ী ৩ থেকে ৮ হাজার টাকায় বিক্রি করা হয় এসব ট্রাঙ্ক। রুপাতলী এলাকা, বরিশাল, ২৩ জুলাই
ছবি: সাইয়ান
৭ / ১৯
দূরের জমিতে রোপণের জন্য ধানের চারা সাইকেলে করে নিয়ে যাচ্ছেন এই চাষি। সোলাগাড়ি এলাকা, মিঠাপুকুর, রংপুর, ২৩ জুলাই
ছবি: মঈনুল ইসলাম
৮ / ১৯
সারা বছরই সবজির চারা বিক্রি হয়। বিভিন্ন রকমের সবজির চারার দাম প্রতিটি ২ টাকা থেকে ১০ টাকার মধ্যে। বিক্রির জন্য বেগুনের চারা তুলছেন দুই নার্সারিশ্রমিক। মোলংহাট এলাকা, মিঠাপুকুর, রংপুর, ২৩ জুলাই
ছবি: মঈনুল ইসলাম
৯ / ১৯
সচেতনতার অভাবে প্রায়ই রেললাইনে কাটা পড়ে প্রাণ হারায় মানুষ। তারপরও রেললাইনের পাশের বাড়িঘরের শিশু-কিশোরেরা বেশির ভাগ সময় খেলা করে রেললাইনের ওপর। যেকোনো সময়ে ঘটতে পারে বড় দুর্ঘটনা। দৌলতপুর এলাকা, সদর উপজেলা, কুমিল্লা, ২৩ জুলাই
ছবি: এম সাদেক
১০ / ১৯
সিলেট বিমানবন্দর-কোম্পানীগঞ্জ-ভোলাগঞ্জ সড়কে প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটছে। দুর্ঘটনার অন্যতম কারণ অসচেতনতা-অনিয়ন্ত্রিত চলাচল। ব্যস্ততম সড়কে সাইকেলের হাতল ছেড়ে চলেছে এক কিশোর। মালনিছড়া চা-বাগান এলাকা, সিলেট, ২৩ জুলাই
ছবি: আনিস মাহমুদ
১১ / ১৯
খাবারের খোঁজে লোকালয়ে এসেছে একটি বানর। বিদ্যুতের তারে হেঁটে এক পাশ থেকে আরেক পাশে যাচ্ছে। কাজীটুলা এলাকা, সিলেট, ২৩ জুলাই
ছবি: আনিস মাহমুদ
১২ / ১৯
রাজধানীর পুরান ঢাকার কাজী আলাউদ্দীন সড়কে দীর্ঘদিন ধরে পয়োনিষ্কাশন নালা সংস্কারের কাজ চলছে। এতে রাস্তা খোঁড়াখুঁড়িতে দুর্ভোগে পড়েছেন এলাকাবাসী। বেলা ১টা, পুরান ঢাকা, ২৩ জুলাই
ছবি: সাজিদ হোসেন
১৩ / ১৯
ভৈরব নদের পানিতে বিভিন্ন রাসায়নিকের ড্রাম ধুচ্ছেন একজন। প্রতিটি ড্রাম ধুয়ে ৫ টাকা করে পাবেন তিনি। বড়বাজার বলাকা ঘাট, খুলনা, ২৩ জুলাই
ছবি: সাদ্দাম হোসেন
১৪ / ১৯
পাট কাটার পর এখন জমিতে হালচাষ চলছে। ধান রোপণের প্রস্তুতির সময় পোকামাকড় খাওয়ার জন্য জমিতে সাদা বকের আনাগোনা বাড়ে। সরারচর এলাকা, বাজিতপুর, কিশোরগঞ্জ, ২৩ জুলাই
ছবি: তাফসিলুল আজিজ
১৫ / ১৯
পাটের আঁশ ছাড়িয়ে তা ধুয়ে তোলার কাজে ব্যস্ত নারীরা। জালালপুর, পাবনা, ২৩ জুলাই
ছবি: হাসান মাহমুদ
১৬ / ১৯
হাওর-খাল-বিল এখন পানিতে ভরপুর। বর্ষায় হাওরাঞ্চলের মানুষ দিনের বেশির ভাগ সময় পার করেন মাছ শিকারে। যে যাঁর মতো করে মাছ ধরেন বিভিন্ন ধরনের জাল দিয়ে। বেল জাল দিয়ে মাছ ধরছেন একজন। নৌকায় ভেসে ভেসে মাছ শিকার করছেন আরও দুজন। বর্ণি এলাকা, কোম্পানীগঞ্জ, সিলেট, ২৩ জুলাই
ছবি: আনিস মাহমুদ
১৭ / ১৯
ভ্রাম্যমাণ ধান ভাঙার কল নিয়ে বেরিয়েছেন দুজন। হাওরাঞ্চলে ঘুরে ঘুরে প্রতি মণ ধান ৫০ টাকায় ভাঙান তাঁরা। খাগাইল এলাকা, কোম্পানীগঞ্জ, সিলেট, ২৩ জুলাই
ছবি: আনিস মাহমুদ
১৮ / ১৯
বাঁশের তৈরি মুরগির খাঁচা কাঁধে নিয়ে বিক্রির জন্য ঘুরছেন এই ব্যক্তি। একটি খাঁচা বিক্রি করছেন ১৩০ টাকায়। ঘাঘটপাড়া, রংপুর, ২৩ জুলাই
ছবি: মঈনুল ইসলাম
১৯ / ১৯
বৃষ্টি নেই। কয়েক দিনের খরায় ঘাঘট নদে পানি কমেছে। সেখানে মাছ ধরছেন এক শৌখিন মাছশিকারি। ভুরারঘাট এলাকা, সদর উপজেলা, রংপুর, ২৩ জুলাই
ছবি: মঈনুল ইসলাম