বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

কুমিল্লাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানের ঘটনার নিন্দা জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি, বাংলাদেশে এই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি হাজার বছর ধরে চলে আসছে। আমরা হিন্দু, বৌদ্ধ, মুসলমান, খ্রিষ্টানসহ সব ধর্মাবলম্বী একসঙ্গে বসবাস করছি। আমরা এ দেশে কখনো সাম্প্রদায়িকতাকে প্রশ্রয় দিইনি। এটা আমরা বড় গলায় বলতে পারি।’

এবারের পূজার সময়ে কয়েকটি অপ্রীতিকর ঘটনার উল্লেখ করে বিএনপির মহাসচিব বলেন, এসব যারা ঘটিয়েছে, তারা চায় এ দেশে অশান্তি সৃষ্টি করতে। যারা এ দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করতে চায়, সেই দুর্বৃত্তরা এটা ঘটিয়েছে। তিনি বলেন, ‘আমরা এসব ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে প্রকৃত অপরাধীদের গ্রেপ্তার করে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি করছি।’

এর আগে বিকেলে ঢাকা জেলার কেরানীগঞ্জে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের মির্জাপুর গ্রামের ‘বায়বাড়ি’ পূজামণ্ডপ পরিদর্শন করেন মির্জা ফখরুল ইসলাম।

সেখানে পূজামণ্ডপ পরিদর্শন করেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, ইকবাল হাসান মাহমুদ, ভাইস চেয়ারম্যান বরকতউল্লাহ, আবদুল আউয়াল মিন্টু, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন, বিএনপি নেতা আবদুস সালাম, জহিরউদ্দিন স্বপন, রুহুল কুদ্দুস তালুকদার, শামা ওবায়েদ প্রমুখ। গয়েশ্বর চন্দ্র রায় ও তাঁর পুত্রবধূ নিপুণ রায় চৌধুরী অতিথিদের অভ্যর্থনা জানান।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন