বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

রিমান্ড মঞ্জুর হওয়া অন্য আসামিরা হলেন জামায়াতে ইসলামীর অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি জেনারেল হামিদুর রহমান আজাদ, রফিকুল ইসলাম খান, নির্বাহী পরিষদের সদস্য ইজ্জত উল্লাহ, মোবারক হোসেন, আবদুর রব, জামায়াতের কর্মী মনিরুল ইসলাম, আবুল কালাম ও ছাত্রশিবিরের সাবেক সভাপতি ইয়াসিন আরাফাত।

গতকাল সোমবার বিকেলে রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার একটি বাড়ি থেকে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়। আদালত–সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, ভাটারা থানার মামলায় মিয়া গোলাম পরওয়ারসহ ৯ জনকে আদালতে হাজির করে ১০ দিন রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করে পুলিশ। আদালত উভয় পক্ষের শুনানি নিয়ে তাঁদের প্রত্যেকের চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

জামায়াতের নেতাদের গ্রেপ্তারের বিষয়ে পুলিশের গুলশান বিভাগের উপকমিশনার মো. আসাদুজ্জামান প্রথম আলোকে বলেন, ‘রাষ্ট্রদ্রোহের ষড়যন্ত্র এবং দেশকে অস্থিতিশীল করতে তাঁরা বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার একটি বাসায় গোপন বৈঠকে মিলিত হয়েছিলেন, এমন খবর পেয়ে আমরা সেখানে অভিযান চালাই।’

অন্যদিকে জামায়াতে ইসলামীর পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, দলীয় একটি বৈঠকে অংশ নিতে গেলে গোলাম পরওয়ারসহ নেতাদের ধরে নিয়ে যায় পুলিশ।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন