দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশ যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মাঈনুল হোসেন খান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, ১৮ জুন সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির সঙ্গে বেলকুচি উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক একটি সালিস বৈঠকে পারিপার্শ্বিক মতানৈক্যের কারণে বিবাদে জড়িয়ে পড়েন। এ ঘটনা নিয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হলে কেন্দ্রীয় যুবলীগের দৃষ্টিগোচর হয়। এরপর বাংলাদেশ যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশের নির্দেশে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলার যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটি ২৬ জুন (শুক্রবার) থেকে বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়।

সিরাজগঞ্জ জেলা যুবলীগ সভাপতি রাশেদ ইউসুফ জানান, দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ, জেলা যুবলীগের নির্দেশ অমান্য, করোনা পরিস্থিতির মধ্যে যুবলীগের সমাবেশসহ নানা অভিযোগের কারণে বেলকুচি উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণার জন্য কেন্দ্রীয় কমিটিকে সুপারিশ করা হয়। এরই অংশ হিসেবে কেন্দ্রীয় যুবলীগের সিদ্ধান্ত মোতাবেক শুক্রবার সন্ধ্যায় আহ্বায়ক কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে জনসমাগম নিষিদ্ধ থাকলেও গত বৃহস্পতিবার দুপুরে বেলকুচি উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক সাজ্জাদুল হক রেজার ওপর সন্ত্রাসী হামলার অভিযোগ এনে সাবেক মন্ত্রী ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল লতিফ বিশ্বাসের বিরুদ্ধে শত শত নেতা-কর্মী নিয়ে মানববন্ধন ও সমাবেশ করে বেলকুচি উপজেলা যুবলীগ। আর এ সমাবেশের কারণে সমালোচনার মুখে বেলকুচি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ারুল ইসলামকে প্রত্যাহার করা হয়। বৃহস্পতিবার রাতে তাঁকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনসে সংযুক্ত করা হয়েছে। অভিযোগ রয়েছে, আগাম খবর জেনেও সমাবেশে বাধা দেয়নি পুলিশ বা উপজেলা প্রশাসন।

এ ছাড়া ৬ জুন বেলকুচি উপজেলার সগুনা চৌরাস্তা মোড়ে একটি সালিস বৈঠককে কেন্দ্র করে দৌলতপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা আশিকুর রহমান বিশ্বাস ও উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক সাজ্জাদুল হকের পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। আশিকুর রহমানের পক্ষের উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক কামাল আহমেদ গুলিবিদ্ধসহ ১৫ জনের মতো আহত হয়। সংঘর্ষ চলাকালে ভাঙচুর করা হয় উভয় পক্ষের বেশ কিছু মোটরসাইকেল। এরপর মাঝেমধ্যেই উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটছে। এ ঘটনায় ১৭ জুন উভয় পক্ষ বেলকুচির থানায় পাল্টাপাল্টি দুটি মামলা করে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন