বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব এবারও আইভীকে মনোনয়ন দিলেও শামীম ওসমানদের পরিবার ঘনিষ্ঠদের তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী তৈমুরের প্রচারে দেখা যায়। দলের নির্বাচন বর্জনের সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে মেয়র প্রার্থী হয়ে বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টার পদ হারিয়েছেন তৈমুর আলম খন্দকার। তবে তাঁর নির্বাচনী প্রচারে স্থানীয় বিএনপি নেতাকর্মীরা রয়েছেন। শামীম ওসমানও তৈমুরের পক্ষে কাজ করছিলেন বলে নৌকার প্রার্থীর শিবির থেকে অভিযোগ করা হয়েছিল।

এরমধ্যে সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে এসে এই নির্বাচনে নৌকার প্রার্থীর পক্ষে কাজ করার ঘোষণা দেন শামীম ওসমান।

তার পরদিন মঙ্গলবার রাতে নারায়ণগঞ্জ শহরের খানপুরে নির্বাচনী পথসভায় যোগ দিয়ে দলের ভেতরে ‘ধূম্রজাল’ কেটে যাওয়ার কথা বললেন জাহাঙ্গীর কবির নানক। তৈমুর আলম খন্দকারকে ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, ‘উনি কখনো বলেন বিএনপির প্রার্থী, আবার কখনো বলেন মানুষের প্রার্থী, আবার কখনো বলেন জনগণের প্রার্থী। উনি এবার বলছেন, কেল্লা ফতে।’

তৈমুর আলম খন্দকারকে শেষ পর্যন্ত ভোটের লড়াইয়ে থাকার আহ্বান জানিয়ে জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, ‘দয়া করে যাইয়েন না, আগামী ১৬ জানুয়ারি নির্বাচনের ফলাফলটা দেইখ্যা যান। তারপর বুঝতে পারবেন কত ধানে কত চাল।’

নারায়ণগঞ্জবাসীকে ধন্যবাদ জানিয়ে এই আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, নির্বাচন নিয়ে উৎসাহ–উদ্দীপনা বয়ে যাচ্ছে। সেই আনন্দময় পরিবেশে কেউ যদি ছন্দপতন ঘটায় তাঁরা তা হতে দেবেন না।

এ সময় আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আবদুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই, মহানগর আওয়ামী লীগের আনোয়ার হোসেনসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন