বিজ্ঞাপন

মির্জা ফখরুল বলেন, মহানবী (সা.)–এর কার্টুন প্রকাশ ও তা সমর্থন করা ধর্মবিদ্বেষকে উসকে দেয় এবং এর প্রতিবাদের ভাষা হিসেবে মানুষ হত্যাও গ্রহণযোগ্য নয়। বিশ্বের শান্তি প্রতিষ্ঠার মহান ব্রত নিয়ে যিনি মানবতার ধর্ম ইসলাম প্রচার করেছেন, সেই মহানবী (সা.)–এর দীক্ষাই হোক সবার নির্দেশক।

বিশ্বব্যাপী যে অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে, তা থেকে বেরিয়ে আসার এবং ধর্মীয় স্বাধীনতা ও মূল্যবোধকে স্বীকৃতি দেওয়ার মতো মানবিক ও গণতান্ত্রিক দায়িত্ব পালনের জন্য ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টকে উদ্যোগী হতে হবে বলে জানান মির্জা ফখরুল।

মহানবী (সা.)–এর কার্টুন প্রকাশ নিয়ে বাংলাদেশ সরকারের অবস্থান সম্পর্কে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘বাংলাদেশ সরকার কোনটাতে প্রতিবাদ জানায় আর কোনটাতে জানায় না—এটা বলা দুরূহ। কারণ, আপনারা লক্ষ করে দেখেছেন, বাংলাদেশের সার্বভৌমত্ব যেখানে প্রশ্নের সম্মুখীন হয়, সীমান্তে গুলি করে মানুষ মারা হয় আমাদের নাগরিকদের, সে বিষয়ে কিন্তু আমাদের সরকার কোনো প্রতিবাদ জানায় না বা প্রতিবাদ করে না।’

জনগণের ইচ্ছা বা আকাঙ্ক্ষাকে কেন্দ্র করে সরকার কখনো সে ধরনের অবস্থান নেয়নি জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমার মনে হয়, সেই কারণে হয়তো তারা (সরকার) এখন পর্যন্ত কোনো রিঅ্যাকশন দেয়নি। সেটাতে তাদের যে চরিত্র, তা পরিষ্কার হয়ে ওঠে।’

নির্বাচন কমিশনের প্রস্তাবিত আইন গণতন্ত্রের জন্য হুমকি বলে জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব। তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশন যে আইন সংশোধন করতে যাচ্ছে বা প্রস্তাব করেছে, এই আইনগুলো করলে তা গণতন্ত্রের জন্য মারাত্মক হুমকি হয়ে দাঁড়াবে।

নির্বাচন কমিশন কর্তৃক প্রস্তাবিত স্থানীয় সরকার নির্বাচন আইন, ২০২০ বিষয়ে বিএনপির একটি প্রতিনিধিদল তাদের সুপারিশ ও চিঠি নির্বাচন কমিশনে দেওয়ার কথা জানিয়েছে।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন