বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ইসমাইল হোসাইন অভিযোগ করে বলেন, ‘আলেম সমাজকে বিভ্রান্ত করার জন্য জামায়াত-বিএনপি-হেফাজত এই ষড়যন্ত্র করেছে।’ ওই ঘটনার জন্য দায়ী ব্যক্তিদের পরিচয় শুক্রবার জুমার নামাজের আগে প্রকাশ করার দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, তাঁদের দ্রুত গ্রেপ্তার করা না হলে মিছিল, মানববন্ধনসহ নানা কর্মসূচি দেওয়া হবে।

সরকার সমর্থিত দল হওয়া স্বত্ত্বেও কেন আন্দোলনের ডাক দেওয়া হয়েছে, এমন প্রশ্নের জবাবে নেতারা বলেন, পবিত্র কোরআনের বিরুদ্ধে কেউ ষড়যন্ত্র করলে তাকে রাজপথে রুখে দেওয়া হবে, সে যে–ই হোক। সরকার যদি ওই ঘটনার রহস্য উদ্‌ঘাটন করতে না পারে, তাহলে অবশ্যই আন্দোলন হবে।

সংবাদ সম্মেলনে ওই দলের মহাসচিব শাহাদাত হোসাইন, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ শোয়াইব, উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য ওবাইদুল্লাহ ফারুকি, সহসভাপতি আবদুস সাত্তার, যুগ্ম মহাসচিব ওমর ফারুক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন