বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

প্রতিপক্ষ কে, এমন প্রশ্নের জবাবে সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেন, ‘যারা সুষ্ঠু নির্বাচনে বাধা দেয়, তারা একটি সময় গিয়ে এক। এখানে নির্বাচন হচ্ছে আইভি বনাম অনেক কিছু। তাই অনেক পক্ষ এক হতে পারে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী যেন সতর্ক থাকে।’

আইভী বলেন, ‘আমার নির্বাচনী অবস্থা যেখানে জমজমাট, সেখানে সহিংসতা সৃষ্টি করা হতে পারে। নির্বাচন কমিশনকে আমি আগেই জানিয়েছি যাতে ভোটকেন্দ্রে ভোটার যেতে পারেন। নারী ভোটার এবং তরুণ ভোটাররা যেন যেতে পারেন। কারণ, এই ভোটগুলো আমার। কোনো ধরনের সহিংসতা যেন না হয়।’

আইভী বলেন, ‘আমার বিজয় সুনিশ্চিত জেনে কেউ যদি ভোটকেন্দ্রে সহিংসতা করে, সেটি মোটেও ঠিক হবে না। এ ক্ষেত্রে আমি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে অনুরোধ করব, তারা যেন বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখে।’

এ নির্বাচনে আইভীর মূল প্রতিপক্ষ বিএনপি থেকে সদ্য অব্যাহতি পাওয়া তৈমুর আলম খন্দকার। তাঁর সঙ্গে পারিবারিক যোগাযোগের সম্পর্ক তুলে ধরে আইভী বলেন, ‘ওনার সঙ্গে আমার বন্ডিংটা আগের। তাঁকে আমি চাচা বলে ডাকি। এই বাড়িতেই একাধিকবার এসেছেন তিনি। আমার বাবার কর্মী ছিলেন তিনি। যুদ্ধের ময়দানে হয়তো আমরা একে অপরের প্রতিদ্বন্দ্বী।’

তৈমুর আলমকে কত ভোটে হারাবেন, এমন প্রশ্নের জবাবে আইভী বলেন, ‘নির্বাচন সুষ্ঠু হলে লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে পাস করব ইনশা আল্লাহ। এটা আমার চাচাও (তৈমুর আলম) জানেন।’ পরশু রোববার নারায়ণগঞ্জ সিটিতে ভোট গ্রহণ হবে।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন