বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জবাবে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘এটি তারা পরীক্ষা করবেন এবং এ নিয়ে আলোচনা করবেন। যতটুকু গুরুত্ব দিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া যায়, সেভাবেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

default-image

এর আগে বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা স্মারকলিপিতে বলেন, ফৌজদারি কার্যবিধির ৪০১{ ১}–এর ধারা মতে সরকার যেকোনো সময় শর্তহীনভাবে নতুন প্রজ্ঞাপন জারি করে বা ৪০১–এর ৬ উপধারা মোতাবেক বিশেষ আদেশ দিয়ে খালেদা জিয়াকে বিদেশে চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে পারে। স্মারকলিপি পড়ে সেটা আইনমন্ত্রীর হাতে তুলে দেন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সদস্যসচিব মো. ফজলুর রহমান। এ সময় অন্য আইনজীবীরা উপস্থিত ছিলেন।

খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে পাঠিয়ে তাঁর সুচিকিৎসার দাবি জানাচ্ছে বিএনপি। এই দাবিতে দলটি গত শনিবার গণ–অনশন কর্মসূচি পালন করেছে। গতকাল সোমবার বেলা ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে তাঁর সুচিকিৎসার দাবিতে সমাবেশও করে দলটি।

এর আগে শনিবার খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসার ব্যাপারে আইনমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য তাঁরা বিদেশ থেকে চিকিৎসক আনতে পারবে। যত বড় চিকিৎসক তারা আনতে চায়, আনতে পারে। সেটায় সরকার কোনো বাধা দেবে না। কিন্তু এটাও তাদের মনে রাখতে হবে, দেশের আইনে যা আছে, তার বাইরে গিয়ে সরকার কোনো কিছু করবে না।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন