এ সময় ঢাকা, চট্টগ্রাম, ময়মনসিংহসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে গণতন্ত্র মঞ্চসহ বিরোধী দলের সভা–সমাবেশে বাধা, হামলা মামলা, সরকার ও প্রশাসনের অঘোষিত হরতালের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান গণতন্ত্র মঞ্চের নেতারা। তাঁরা বলেন, মত প্রকাশের স্বাধীনতা ও সংগঠিত হওয়ার অধিকার সরকারের করুণার বিষয় নয়, এটা সংবিধান দ্বারা স্বীকৃত। কিন্তু এ সরকার ক্ষমতাকে চিরস্থায়ী করতে সংবিধানকে তোয়াক্কা না করে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি ও জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদ করায় গত দুই মাসে বিরোধী দলের সভা-সমাবেশে গুলি করে পাঁচ নেতা-কর্মীকে হত্যা করেছে। বিভিন্ন স্থানে নেতা–কর্মীদের ওপর হামলা করেছে। বর্তমান ফ্যাসিবাদী-কর্তৃত্ববাদী সরকার অবৈধ ক্ষমতা টিকিয়ে রাখতে সারা দেশে বিরোধী দলের ওপর দমন-পীড়ন চালিয়ে আসছে। বিরোধী রাজনৈতিক কর্মীকে হত্যা-গুম-নির্যাতন করে সরকার ভয়ের সংস্কৃতিকে পাকাপোক্ত করেছে।

সরকারকে বিদায় দিতে জনগণকে ঐক্যবদ্ধ গণ–আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছেন গণতন্ত্র মঞ্চের নেতারা।

গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকির সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী হাসনাত কাইয়ূম, গণ অধিকার পরিষদের সদস্যসচিব নুরুল হক, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) কেন্দ্রীয় কার্যকরী সাধারণ সম্পাদক শহীদ উদ্দীন মাহমুদ স্বপনসহ প্রমুখ।