আজ পাইকারি পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম ১৯ দশমিক ৯২ শতাংশ বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে এ খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)। এই নতুন দাম আগামী ডিসেম্বর থেকে কার্যকর হবে। এতে শিগগিরই গ্রাহক পর্যায়েও বাড়তে পারে বিদ্যুতের দাম।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপি নেতা শামসুজ্জামান বলেন, ‘সরকার বিদ্যুতের মূল্য প্রায় ২০ ভাগ বাড়িয়েছে। এই মূল্যবৃদ্ধির কারণে কৃষি, শিল্পকারখানা, শিক্ষাসহ সব খাতে চাপ পড়বে। মানুষের জীবন কঠিন করে তুলবে। এমনিতেই মানুষ ক্রয়ক্ষমতা থেকে অনেক দূরে; চলতে পারছে না। দুই দিন পরে হয়তো আবার শুনব গ্যাসের দাম বাড়াচ্ছে, পানির দাম বাড়াচ্ছে। কীভাবে মানুষ বাঁচবে?’

বর্তমান সরকার বেশি দিন ক্ষমতায় নেই মন্তব্য করে শামসুজ্জামান বলেন, এই সরকার যদি ভালোয় ভালোয় চলে যায়, তাহলে ভালো। সরকারের যাওয়ার একটাই পথ, তা হচ্ছে পদত্যাগ করা, তত্ত্বাবধায়কের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করা, সংসদ ভেঙে দেওয়া, নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন করা। আগে থেকে এই কাজগুলো করলে সম্মানজনক প্রস্থান পাবে। কিন্তু সরকার সম্মানের সঙ্গে যেতে চায় কি না, সে সিদ্ধান্ত তাদেরই নিতে হবে।

অনুষ্ঠানে বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মো. রহমতুল্লাহ বলেন, ‘তারেক রহমান যেভাবে আমাদের নির্দেশনা প্রদান করবেন, সেভাবে চলমান গণতান্ত্রিক আন্দোলন সফল করব।’

অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন অর্পণ বাংলাদেশের সভাপতি বীথিকা বিনতে হোসাইন।