হাইকোর্ট
ফাইল ছবি

নারায়ণগঞ্জে বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কর্মসূচিকে ঘিরে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় করা মামলায় জেলা বিএনপির আহ্বায়ক মনিরুল ইসলামসহ বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের ২৪ নেতা-কর্মী ৬ সপ্তাহের আগাম জামিন পেয়েছেন।

আগাম জামিন চেয়ে আসামিদের করা আলাদা তিনটি আবেদনের শুনানি নিয়ে বিচারপতি মো. রেজাউল হাসান ও বিচারপতি মো. আতাবুল্লাহর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ রোববার এ আদেশ দেন।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কর্মসূচি ঘিরে ১ সেপ্টেম্বর নারায়ণগঞ্জে বিএনপি-পুলিশ সংঘর্ষ চলাকালে গুলিতে যুবদল কর্মী শাওন নিহত হন। ওই ঘটনায় পরদিন মামলা করে পুলিশ। নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় করা ওই মামলায় আসামি হিসেবে জেলা বিএনপির শীর্ষ নেতাসহ ৭১ জনের নাম উল্লেখ করা হয়। অজ্ঞাতনামা হিসেবে আরও ৮০০ থেকে ৯০০ জনকে আসামি করা হয়।

মামলায় আগাম জামিনের জন্য বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের ২৪ নেতা-কর্মী আজ হাইকোর্টে হাজির হন। জামিন আবেদনের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী মো. রুহুল কুদ্দুস ও মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান খান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এমরান আহম্মদ ভূঁইয়া।

পরে আইনজীবী মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান খান প্রথম আলোকে বলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক মনিরুল ইসলাম, সদস্যসচিব মামুন মাহমুদ, ফতুল্লা থানা বিএনপির আহ্বায়ক জাহিদ হাসান, জেলা যুবদলের সদস্যসচিব মশিউর রহমান, জেলা শ্রমিক দলের সভাপতি মন্টু মেম্বারসহ ২৪ নেতা-কর্মীকে ৬ সপ্তাহের আগাম জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট। এরপর সংশ্লিষ্ট আদালতে তাঁদের আত্মসমর্পণ করতে বলা হয়েছে।

এর আগে ৭ সেপ্টেম্বর ওই মামলায় নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি সাখাওয়াত হোসেন খানসহ বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের ২২ নেতা-কর্মী হাইকোর্ট থেকে ৬ সপ্তাহের আগাম জামিন পেয়েছেন।