আজ শনিবার ঢাকা মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির উদ্যোগে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন বলে গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়। রাশেদ খান মেনন সমাবেশে ভার্চ্যুয়ালি যুক্ত হয়ে বক্তব্য দেন। পার্টির অফিসের সামনে থেকে দলীয় নেতা–কর্মীরা একটি মিছিল নিয়ে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এসে সমাবেশ করেন।

রাশেদ খান মেনন বলেন, আইএমএফ যেসব দেশে তাদের সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয়, সেসব দেশেই অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি হয়। তিনি বলেন, বৈশ্বিক সংকটের বাস্তবতা স্বীকার করে যে কথাটি বলা প্রয়োজন, তা হলো এই সংকটের দায়ভার সাধারণ মানুষের ওপর চাপিয়ে দেওয়া যায় না।

জ্বালানি খাতে দুই দশক ধরে দুর্নীতি ও লুটপাট চলছে উল্লেখ করে রাশেদ খান মেনন বলেন, এসব দুর্নীতি ও লুটপাটের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিলে এই সংকট এড়ানো যেত। কিন্তু কিছু দুর্নীতিবাজ, অসৎ ব্যক্তির লোভের কারণে অর্থনীতির যে দশা হতে চলেছে, তাতে জনগণের ধৈর্য বজায় রাখা কঠিন। এরপরও গ্যাস, পানি ও বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি হবে মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা।

ওয়ার্কার্স পার্টির ঢাকা মহানগরের সাধারণ সম্পাদক কিশোর রায়ের সঞ্চালনায় ঢাকা মহানগরের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসাইনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন জাহাঙ্গীর আলম ফজলু ও তৌহিদুর রহমান প্রমুখ।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন