রাজধানীর পুরানা পল্টনে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) কার্যালয়ে এ সভা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন সিপিবির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মিহির ঘোষ।
সভায় আইএমএফের কাছ থেকে ঋণ নেওয়ার পরিকল্পনায় সরকারের তীব্র সমালোচনা করে জোটের নেতারা বলেন, বাংলাদেশের আজকের সামাজিক ও অর্থনৈতিক পরিস্থিতির জন্য দায়ী সরকারের দুর্নীতি, লুটপাট ও দুঃশাসন। উন্নয়ন প্রকল্পের নামে জনগণের টাকা নয়ছয় করেছে সরকার। দুর্নীতি লুটপাটের টাকা পাচার হয়েছে সরকারি মদদে। সেই টাকা ফেরত আনার কোনো উদ্যোগ নেই, দোষীদের গ্রেপ্তারেরও কোনো উদ্যোগ সরকারের নেই।

সভায় বক্তারা আরও বলেন, বিদেশি ঋণের নামে হাজারটা শর্ত প্রতিনিয়ত আরোপ করা হচ্ছে জনগণের ওপর। কিন্তু সরকার কখনোই এসব ঋণ নেয়ার সময় শর্তগুলো জনসম্মুখে আনে না। অবিলম্বে সকল বিদেশি ঋণের শর্ত জনসম্মুখে আনতে হবে।

সভায় আইএমএফের ঋণের নামে ‘রাষ্ট্রীয় সম্পদ বেসরকারিকরণ এবং বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে ভর্তুকি প্রত্যাহারের পাঁয়তারার’ বিরুদ্ধে আগামী ৮ নভেম্বর বেলা ৩টায় রাজধানীর পুরানা পল্টনে বিক্ষোভ-সমাবেশ এবং মিছিলের সিদ্ধান্ত হয়। কর্মসূচিতে অংশ নিতে জনগণের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

আজকের সভায় বক্তব্য দেন বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) সাধারণ সম্পাদক বজলুর রশিদ ফিরোজ, বাংলাদেশ বিপ্লবী কমিউনিস্ট লীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল কবির জাহিদ, সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য আবদুস সাত্তার, বাসদের (মার্ক্সবাদী) কেন্দ্রীয় নেতা রাশেদ শাহরিয়ার, সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের নির্বাহী সভাপতি আবদুল আলী, কেন্দ্রীয় নেতা রুবেল শিকদার প্রমুখ।