সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে নির্বাচন কমিশনার মো. আলমগীর বলেন, ‘ডিসেম্বরের শেষে অথবা জানুয়ারির শুরুতে রংপুরের নির্বাচন হতে পারে। সে ক্ষেত্রে নভেম্বরে তফসিল ঘোষণা করা হবে। তবে আমরা নির্বাচনটা সময়ের মধ্যেই করতে চাই, কোনোভাবে সময় শেষের দিকে করতে চাই না।’

এই নির্বাচনেও ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন এবং ভোটকেন্দ্রে সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন করা হবে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে মো. আলমগীর বলেন, সেটা কমিশনের সভায় সিদ্ধান্ত হবে। এখনই বলা যাবে না। তবে এগুলো ব্যবহারের একটা প্রাথমিক সিদ্ধান্ত কমিশনের রয়েছে। ইসির অবস্থান হচ্ছে, যতগুলো সিটি করপোরেশন নির্বাচন হবে, সেখানে ইভিএম ও সিসিটিভি ক্যামেরা দেওয়ার চেষ্টা করবে। তবে প্রতিটা নির্বাচনের জন্য আলাদা আলাদা সভায় এ সিদ্ধান্তগুলো নেওয়া হয়।

বৃহস্পতিবার ইসির তদন্ত কমিটি গাইবান্ধা-৫ আসনের উপনির্বাচনে অনিয়ম নিয়ে তদন্ত প্রতিবেদন ইসি সচিবের কাছে জমা দিয়েছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে মো. আলমগীর বলেন, গত বৃহস্প‌তিবার প্রতিবেদন জমা দেওয়া হলেও কমিশন এখনো প্রতিবেদনটি নিয়ে বসেনি। প্রতিবেদনটি তাঁদের হাতে এলে আলোচনা করে তারপর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।