আজকের সম্মেলনে বক্তব্যে বিএনপির উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের প্রথমে বলেন, ‘খেলা হবে’। এরপর তিনি কিছুক্ষণ থামেন। এ সময় মাঠ থেকে নেতা, কর্মী ও সমর্থকেরাও সমস্বরে বলে ওঠেন, ‘খেলা হবে’, ‘খেলা হবে’।

তখন ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আন্দোলনে খেলা হবে। নির্বাচনে খেলা হবে। ভোট চুরির বিরুদ্ধে খেলা হবে। ভোট জালিয়াতির বিরুদ্ধে খেলা হবে। খেলা হবে দুর্নীতির বিরুদ্ধে। যারা ১৭ কোটি মানুষের ভাগ্য নিয়ে ছিনিমিনি খেলে, তাদের বিরুদ্ধে খেলা হবে। খেলা হবে প্রহসনের নির্বাচনের বিরুদ্ধে।’

বিএনপি এ দেশের স্বাধীনতার আদর্শ গিলে ফেলেছে অভিযোগ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় যেতে পারলে দেশসুদ্ধ গিলে ফেলবে। তিনি দেশবাসীর উদ্দেশে বলেন, ‘সাবধান, বিএনপি থেকে সাবধান! বড়লোকদের বাড়ির সামনে লেখা থাকে কুকুর থেকে সাবধান। আমরা বলি, বিএনপি থেকে সাবধান।’

বিএনপি মারমুখী আচরণ করছে মন্তব্য করে সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘তত্ত্বাবধায়কের ভূত মাথা থেকে নামিয়ে ফেলুন। সেটা আর হবে না। আদালত মিউজিয়ামে পাঠিয়েছে। আমাদের দোষ নেই। আমরা তো নিষিদ্ধ করিনি।’

বিএনপি শেষ পর্যন্ত নির্বাচনে যাবে বলে মনে করেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘নির্বাচনে যাবেন না? যাবেন। গাধা পানি ঘোলা করে খায়। সময় আসলে দেখা যাবে।’

জনগণ বিএনপিকে ভোট দেবে না এমন মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘তাদের সঙ্গে জনগণ নেই। যত নাচানাচি লাফালাফি করেন। কর্মীদের বোঝাচ্ছেন, ক্ষমতায় আসি আসি। এত আহ্লাদ! এত সুখ!’

ঐক্যবদ্ধ আওয়ামী লীগ বিজয়ী হবে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপি এত তাফালিং করতেছে কেন জানেন? ভোট হলে শেখ হাসিনার সঙ্গে হেরে যাবেন ফখরুল। রেগে গেলে আরও হেরে যাবেন। আর রাগ কইরেন না।’

ঢাকা জেলা সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের যখন বক্তৃতা করছিলেন, তখন রংপুরে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ চলছিল। বিএনপির সমাবেশের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘রংপুরে একটি সমাবেশ হচ্ছে। আপনারা কেউ জানেন? কত রঙ্গ দেখাইলারে জাদু, কত রঙ্গ দেখাইলা! রংপুরে রঙ্গে রঙ্গের নাটক।’ তিন দিন আগে উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলা থেকে নেতা-কর্মীদের রংপুরে এনে রেখে দেওয়া হয়েছে দাবি করে তিনি বলেন, ‘মঞ্চের সামনে শুয়ে আছে। মঞ্চের ওপরে শুয়ে আছে। বাড়ির ছাদের ওপর, গুদামঘরে শুয়ে আছে।’

বিভাগীয় সমাবেশে লাখ লাখ লোকের জমায়েত হচ্ছে বলে বিএনপির পক্ষ থেকে যে দাবি করা হচ্ছে, তার সমালোচনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘রংপুরে কত কইবেন? ৫০-৬০ হাজার? আওয়ামী লীগের ঢাকা জেলার সম্মেলনে কত লোক হয়েছে, খবর নেন।’

বিএনপির মহাসচিবকে একটু টেলিভিশনে নজর দেওয়ার পরামর্শ দিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘রংপুরের ছবিও দেখুন। আমাদেরটাও দেখুন। এখানে তো শেখ হাসিনা নাই। দেখাব, পলোগ্রাউন্ডে দেখাব। সেখানে ১০ লাখ লোকের সমাগম হবে। শেখ হাসিনা যাবেন। আপনারা ১০ লাখ মুখে বলবেন, আমরা বাস্তবে দেখাব। আপনাদেরটা বাস্তবে সত্য নয়।’