‘লোডশেডিং কেন?’ শীর্ষক শিরোনামে আজ বৃহস্পিতবার বিকেলে সমাবেশে এসব কথা বলেন তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির নেতারা।
সমাবেশে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সাধারণ সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স বলেন, দেশের গ্যাস ব্যবহার করলে দুটি গোষ্ঠী বিশেষ সুবিধা পাবে না। একটি হচ্ছে বড় বড় কমিশন এজেন্ট এবং দ্বিতীয়টি হলো কিছু গোষ্ঠী আছে, যারা ব্যবসায়ী নামধারী, যাদের কমিশন চলে যায় সরকারের পকেটে। তাঁদের সুবিধার জন্য দেশের গ্যাস না তুলে বিদেশ থেকে গ্যাস ও তেল আমদানি করে বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হচ্ছে। আমদানিনির্ভর জ্বালানি নীতির ফলে দেশের বিদ্যুৎ খাত সংকটে পড়েছে।

জ্বালানি খাতে যে দুর্নীতি ও লুটপাট হচ্ছে, এটা সরকারের বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাত নিয়ে যে মাস্টারপ্ল্যান, তার অংশ হিসেবেই হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) সাধারণ সম্পাদক বজলুর রশীদ ফিরোজ। তিনি বলেন, মাস্টারপ্ল্যানে অনেক বিষয়ের মধ্যে লেখা ছিল, কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলো চালু করবে ও নির্মাণ করবে এবং এলএনজি আমদানি করে জ্বালানি সংকট মেটানো হবে। এই দুটি সিদ্ধান্ত সরকার পুরোপুরি বাস্তবায়ন করছে। আরেকটি জিনিস লেখা ছিল, বাপেক্স ও পেট্রোবাংলা শক্তিশালী করা হবে, কিন্তু সে কাজটি সরকার বেমালুম ভুলে গেছে।

কুইক রেন্টালের নামে বিদ্যুৎকেন্দ্র বসিয়ে বসিয়ে হাজার কোটি টাকা দেওয়া হচ্ছে উল্লেখ করে বজলুর রশীদ ফিরোজ বলেন, ১৯৭৫ সালের পর সাবেক রাষ্ট্রপতি খন্দকার মোশতাক আহমেদ শেখ মুজিবের হত্যার বিচারের বিরুদ্ধে দায়মুক্তি দিয়েছিলেন। ২০০২–০৩ সালে বিএনপি সরকার অপারেশন ক্লিনহার্টের বিরুদ্ধে দায়মুক্তি দিয়েছিল। আর আওয়ামী সরকার বিদ্যুৎ খাতের দুর্নীতি–লুটপাটের বিরুদ্ধে দায়মুক্তি দিয়েছে। যতই দায়মুক্তি দেওয়া হোক, জনগণ মুক্তি দেবে না।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় কমিটির ঢাকা মহানগর নেতা জুলফিকার আলী এবং সমাবেশ সঞ্চালনা করেন জাতীয় কমিটির ঢাকা মহানগর সমন্বয়কারী খান আসাদুজ্জামান মাসুম। সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক এম এম আকাশ, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, জাতীয় কমিটির সংগঠক বাচ্চু ভুঁইয়া, নাঈমা খালেক মনিকা, শহিদুল ইসলাম সবুজ, মো. আলী, মহিন উদ্দিন চৌধুরী লিটন, শামসুল আলম, মীর রেজাউল আলম, সাদরুল হাসান রিপন, বিধান চন্দ্র দাস, মাসুদ খান প্রমুখ।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন