শেখ পরশ বলেন, রাজপথ থাকবে যুবলীগের দখলে। আন্দোলন-সংগ্রামের নামে বিএনপি-জামায়াত জানমালের ক্ষতি করার চেষ্টা করলে সমুচিত জবাব দেবে যুবলীগ।
সমাবেশস্থলে কড়া নিরাপত্তাব্যবস্থা নেওয়া হবে জানিয়ে যুবলীগের চেয়ারম্যান বলেন, সমাবেশ সফল করতে ১০টি উপকমিটি করা হয়েছে। নেতা-কর্মীদের সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রবেশের জন্য পাঁচটি গেট রাখা হবে। এ সমাবেশ হবে তারুণ্য, সাহসের। এ সমাবেশ হবে সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে।

যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান ছাড়াও কেন্দ্রীয় ও ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণের নেতারা সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।