যুক্তরাষ্ট্রসহ সাম্রাজ্যবাদী শক্তি বিভিন্ন দেশে স্বৈরাচারী শক্তিকে মদদ দেয় বলে মন্তব্য করেছে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)। দলটি বলছে, এসব সাম্রাজ্যবাদী ও আধিপত্যবাদী দেশ নিজের স্বার্থ ছাড়া এক পা–ও এগোয় না। তাদের নিজের দেশেই গণতন্ত্র ও মানবাধিকার বিপর্যস্ত। কিন্তু নানা অজুহাতে তারা অন্য দেশে এসব বিষয়ে নাক গলায়।

সিপিবির সভাপতি মোহাম্মদ শাহ আলম ও সাধারণ সম্পাদক রুহিন হোসেন আজ বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে এসব কথা বলেন। একই সঙ্গে তাঁরা বিদেশি সাম্রাজ্যবাদী ও আধিপত্যবাদী শক্তির এ ধরনের তৎপরতা সম্পর্কে সজাগ থাকতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান।

বিবৃতিতে বলা হয়, বর্তমান ও বিগত সরকারগুলো দেশে নির্বাচনব্যবস্থা ধ্বংস করেছে। ক্ষমতার জন্য নানা সময় নির্বাচনকে প্রহসনে পরিণত করেছে। এ অবস্থা থেকে জনগণের ভোটাধিকার ফিরিয়ে আনতে নির্বাচনব্যবস্থার আমূল সংস্কারের দাবি উঠেছে। তবে এ দাবির প্রতি কর্ণপাত না করে শাসকগোষ্ঠী প্রহসনের নির্বাচন অনুষ্ঠিত করতে চায়।

জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে বিভিন্ন দেশের সরকার বাংলাদেশে নানা তৎপরতা চালাচ্ছে অভিযোগ করে বিবৃতিতে বলা হয়, ‘এখন ও বিগত সময়ে যুক্তরাষ্ট্রসহ অনেক দেশের সরকারের আচরণে এটা আরও স্পষ্ট হয়ে উঠেছে। এটা স্বাধীন সার্বভৌম দেশের ওপর নগ্ন হস্তক্ষেপ। কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। সরকার নির্বাচনব্যবস্থা সংস্কারের দাবিকে উপেক্ষা করায় তারা এই সুযোগ পাচ্ছে।’

বিবৃতিতে অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের জন্য সংখ্যানুপাতিক পদ্ধতি প্রবর্তন; নির্বাচনকে টাকা, পেশিশক্তি, প্রশাসনিক কারসাজি ও সাম্প্রদায়িক প্রচারণামুক্ত করা এবং নির্বাচনব্যবস্থার আমূল সংস্কারসহ নির্দলীয় তদারকি সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে গণ-আন্দোলন ও গণসংগ্রাম জোরদারের আহ্বান জানানো হয়।