আদালতে গরহাজির থাকায় ইশরাক হোসেনের বিরুদ্ধে গত ৫ ডিসেম্বর গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। আজ আইনজীবীর মাধ্যমে আদালতে হাজির হয়ে আত্মসমর্পণ করেন তিনি। উভয় পক্ষের শুনানি নিয়ে আদালত ইশরাকের জামিন মঞ্জুর করেন।

আদালত-সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, ২০২০ সালের নভেম্বর মাসে পুলিশের করা মামলায় ইশরাক উচ্চ আদালত থেকে জামিন নিয়েছিলেন। জামিনের মেয়াদ শেষে তাঁকে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করতে বলা হয়। কিন্তু তিনি আত্মসমর্পণ না করায় আদালত ইশরাকের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

মামলার এজাহারের বক্তব্য অনুযায়ী, ২০২০ সালের ১২ নভেম্বর বাংলাদেশ ব্যাংকের বিপরীত পাশে অগ্রণী ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পুড়িয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। এ ঘটনায় ইশরাকসহ ৪২ জনের বিরুদ্ধে মতিঝিল থানায় নাশকতার মামলা করে পুলিশ।

আদালতের পরোয়ানা পেয়ে গত বছরের ৬ এপ্রিল পুলিশ ইশরাককে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠায়। পরে আদালত ইশরাকের জামিন আবেদন নাকচ করে তাঁকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। তবে ওই বছরের ১২ এপ্রিল তিনি আদালত থেকে জামিন পান।

মামলার এজাহারের বক্তব্য অনুযায়ী, ২০২০ সালের ১২ নভেম্বর বাংলাদেশ ব্যাংকের বিপরীত পাশে অগ্রণী ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পুড়িয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। এ ঘটনায় ইশরাকসহ ৪২ জনের বিরুদ্ধে মতিঝিল থানায় নাশকতার মামলা করে পুলিশ। মামলাটির তদন্ত চলছে।