হজে যাওয়ার আগে

পাসপোর্ট, বিমানের টিকিট সংগ্রহ ও তারিখ নিশ্চিত করুন। প্রয়োজনীয় বৈদেশিক মুদ্রা সংগ্রহ করতে ভুলবেন না। নিয়ম মেনে করোনার টিকা বুস্টার ডোজ, ম্যানিনজাইটিস টিকা বা অন্যান্য ভ্যাকসিন দিয়ে নিন। হজের নিয়ম জানার জন্য একাধিক বই পড়তে পারেন। চাইলে প্রথম আলো হজ গাইড সংগ্রহ করতে পারেন।

এই ওয়েবসাইট থেকেও নামিয়ে নিতে পারেন। যাঁরা পড়তে পারেন না, তাঁরা হাজিদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করতে পারেন। হজের কোনো বিষয়ে ভিন্নতা দেখলে ঝগড়া করবেন না। আপনি যে আলেমের ইলম ও তাকওয়ার ওপর আস্থা রাখেন, তাঁর সমাধান অনুযায়ী আমল করবেন, তবে সে মতে আমল করার জন্য অন্য কাউকে বাধ্য করবেন না।

প্রয়োজনীয় মালপত্র

হজের জন্য প্রয়োজনীয় মালপত্র সংগ্রহ করা দরকার। যেমন: ১. পরিচয়পত্র। পাসপোর্ট, টাকা রাখার জন্য গলায় ঝোলানো ছোট ব্যাগ। ২. পুরুষের জন্য ইহরামের কাপড় কমপক্ষে দুই সেট। প্রতি সেটে শরীরের নিচের অংশে পরার জন্য আড়াই হাত বহরের আড়াই গজ এক টুকরা কাপড় আর গায়ের চাদরের জন্য একই বহরের তিন গজ এক টুকরা কাপড়। ইহরামের কাপড় সাদা এবং সুতি হলে ভালো হয়। নারীদের জন্য সেলাইযুক্ত স্বাভাবিক পোশাকই ইহরামের কাপড় ৩. নরম ফিতাওয়ালা স্যান্ডেল। ৪. ইহরাম পরার কাজে ব্যবহারের জন্য প্রয়োজন হলে কটিবন্ধনী (বেল্ট)। ৫. গামছা, তোয়ালে। ৬. লুঙ্গি, গেঞ্জি, পায়জামা, পাঞ্জাবি (আপনি যে পোশাক পরবেন)। ৭. সাবান, টুথপেস্ট, টুথব্রাশ বা মিসওয়াক। ৮. নখ কাটার যন্ত্র, সুই-সুতা। ৯. থালা, বাটি, গ্লাস। ১০. হজবিষয়ক বই, কোরআন শরিফ, ধর্মীয় পুস্তক। ১১. কাগজ-কলম। ১২. চশমা ব্যবহার করলে অতিরিক্ত একটি চশমা। ১৩. বাংলাদেশি টাকা (দেশে ফেরার পর বিমানবন্দর থেকে বাড়ি ফেরার জন্য)। ১৪. নারীদের জন্য বোরকা, ১৫. যত দিন বিদেশে থাকবেন, সেই অনুযায়ী নিবন্ধিত চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্রসহ ওষুধ নেবেন। ১৬. মোবাইল ফোন (সৌদি আরবে ব্যবহার করা যায়, এমন সিম কিনে নিতে হবে)। ১৭. মালপত্র নেওয়ার জন্য ব্যাগ অথবা স্যুটকেস (তালা-চাবিসহ)। বাংলাদেশের পতাকাখচিত ট্রলি ব্যাগ (৬৫ x ৪৫ x ২৫ সেন্টিমিটার) ও হাতব্যাগ নিজ দায়িত্বে সংগ্রহ করতে হবে। ব্যাগের ওপর ইংরেজিতে নিজের নাম-ঠিকানা, ফোন নম্বর, পাসপোর্ট নম্বর লিখতে হবে। এর বাইরে আরও কিছু প্রয়োজনীয় মনে হলে তা নিয়ম মেনে সঙ্গে নিতে হবে।

ঢাকার হজ ক্যাম্পে

  • বিমানে যাত্রার আগে হজ ক্যাম্পে যত দিন অবস্থান করবেন, আপনার শরীর ও মালপত্রের প্রতি খেয়াল রাখবেন।

  • কোনো টিকা বা ভ্যাকসিন নেওয়া বাকি থাকলে অবশ্যই তা নিয়ে নিন। প্রয়োজনীয় বৈদেশিক মুদ্রা সংগ্রহ করে নিন।

মালপত্রের বিধিনিষেধ

বিমানে উড্ডয়নকালে হাতব্যাগে ছুরি, কাঁচি, দড়ি নেওয়া যাবে না। বিমান কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থা অনুযায়ী বিমানে কোনো হজযাত্রী সর্বোচ্চ ৪০ কেজির বেশি মালামাল বহন করতে পারবেন না। নিবন্ধিত চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র ছাড়া কোনো ওষুধ নেওয়া যাবে না। চাল, ডাল, শুঁটকি, গুড় ইত্যাদিসহ পচনশীল খাদ্যদ্রব্য, যেমন রান্না করা খাবার, তরিতরকারি, ফলমূল, পান, সুপারি ইত্যাদি সৌদি আরবে নিয়ে যাওয়া যাবে না।

  • পাসপোর্ট আকারের ছবি, পাসপোর্টের শুরুর ২-৩ পৃষ্ঠার ফটোকপি, স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও টিকার সনদ। প্রত্যেক হজযাত্রীর ৭ সংখ্যার একটি পরিচিতি নম্বর থাকে। এর প্রথম ৪ সংখ্যা এজেন্সির নম্বর আর শেষ ৩ সংখ্যা হজযাত্রীর নম্বর।

  • সৌদি সরকার হজযাত্রীদের জন্য ই-ভিসা চালু করেছে। এই ভিসা পাসপোর্টের সঙ্গে লাগানো থাকে না। কাগজে প্রিন্ট করে দেবে। ফলে হজযাত্রীদের এটি আলাদা সংরক্ষণ করতে হবে। আগে পাসপোর্টের সঙ্গে ভিসা লাগানো থাকত বলে আলাদা করে ভিসা সংরক্ষণের প্রয়োজন হতো না।

  • মুক্তচিন্তা প্রকাশনীর একজন হজযাত্রীর রোজনামচা, ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে প্রকাশিত পবিত্র মক্কা মদীনার পথে প্রান্তরে বই পড়তে পারেন।

দরকারি পরামর্শ

  • প্রিমিয়ার ব্যাংক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এম রিয়াজুল করিম বলেন, সৌদি আরবে অবস্থানকালে সে দেশের ট্রাফিক আইন মেনে চলুন। ট্রাফিক সিগন্যাল পড়লে রাস্তা পার হতে হবে। রাস্তা পার হওয়ার সময় অবশ্যই ডানে-বাঁয়ে দেখেশুনে সাবধানে পার হতে হবে। কখনো দৌড়ে রাস্তা পার হবেন না। এ ছাড়া প্রিমিয়ার ব্যাংকের পক্ষ থেকে হজযাত্রীদের আশকোনা হজ ক্যাম্প থেকে বিনা মূল্যে ছাতা, বেল্ট, ব্যাগ দেওয়া হচ্ছে।

  • নগদ লিমিটেডের প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর এ মিশুক বলেন, নগদ ইসলামিকে হজবিমা রয়েছে। হজ ক্যাম্পে হজযাত্রীদের প্রয়োজনীয় লেনদেন সুবিধা নিশ্চিত করেছে নগদ ইসলামিক। এ ছাড়া মক্কা–মদিনা ২৪ ঘণ্টা দেখার ব্যবস্থা রয়েছে ফেসবুক, ইউটিউব, নগদ ইসলামিক অ্যাপেও।

  • হজযাত্রীদের পরামর্শ দিলেন সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জাফর আলম। তিনি বলেন, যাঁরা সৌদি আরবে হজের উদ্দেশে যাবেন, সেখানে অনেক গরম পড়ে, তাই দিনের বেলা বেরোনোর সময় ছাতা নিয়ে বের হবেন। দেশ থেকে বেশি জিনিস নেবেন না। কারণ, সৌদি আরবে সব জিনিস পাওয়া যায়। খাবারদাবারের ক্ষেত্রে সতর্ক থাকতে হবে, বিশেষ করে যাঁদের ডায়াবেটিস আছে। হজের আগে কম পরিশ্রমের কাজ করবেন। কারণ, হজ অনেক কষ্টসাধ্য। বাংলাদেশ থেকে যাঁরা যাবেন তাঁদের অনুরোধ করব, তাঁরা যেন দলবদ্ধভাবে সৌদি আরবে চলাফেরা করেন, রাস্তা পারাপারের ব্যাপারে সতর্ক থাকেন। এসআইবিএলের পক্ষ থেকে হজযাত্রীদের আশকোনা হজ ক্যাম্প থেকে বিনা মূল্যে বই, ব্যাগ দেওয়া হচ্ছে। এ ছাড়া ডলার ও রিয়াল কেনার সুযোগ রয়েছে। হজ কাফেলা নামে হজের একটি স্কিম রয়েছে।

ধর্ম থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন