>মেহজাবীন চৌধুরী ও জিয়াউল ফারুক অপূর্ব নতুন করে আলোচনায় এসেছিলেন আজ থেকে বছর তিনেক আগে এক ঈদের মৌসুমে বড় ছেলে টেলিছবির মধ্য দিয়ে। টেলিছবিটি তখন তুমুলভাবে দর্শকপ্রিয়তা পেয়েছিল, স্বল্প সময়ের মধ্যেই ছাড়িয়েছিল কোটি ভিউয়ারের ল্যান্ডমার্ক। এরপর শুরু হলো তাঁদের অন্য রকম এক যাত্রা। সেই যাত্রায় তাঁরা এখনো সক্রিয়। জুটি বেঁধে অভিনয় করছেন হরদম। দুজনে প্রতিনিয়তই অ্যাকশন আর কাট-এর দুনিয়াকে ঝলমলে করে চলেছেন। তাই এবারের ঈদ আয়োজনে এই দুই তারকার দিকে ঘুরিয়ে দেওয়া হলো মাইক্রোফোন। তাঁদের দিকে ছুড়ে দেওয়া হলো প্রশ্নের ছক্কা। মেহজাবীন ও অপূর্বকে ঝটপট ছয়টি প্রশ্নের পর তাঁরাও পটাপট দিলেন উত্তর। পাশাপাশি দুজনই অকপটে বললেন একে অপরের সম্পর্কে। তাঁদের সঙ্গে কথা বলেছেন শফিক আল মামুন
default-image

মেহজাবীন বললেন

অপূর্ব অল্পতেই রাগেন না


আপনার বিপরীতে প্রিয় নায়ক বেছে নিতে বলা হলে কার নাম বলবেন?
আমার বিপরীতে প্রিয় নায়ক আফজাল হোসেন। তাঁর সঙ্গে ১০ বছর আগে ষড়ঋতু নামে একটি নাটকে অভিনয় করেছিলাম। এই নায়কের সঙ্গে আরও অভিনয় করতে চাই।


অপূর্বর কোন গুণটি আপনার ভালো লাগে?
অপূর্বর ধৈর্য বেশি। সহজে বা অল্পতেই রাগেন না। তাঁর এই গুণটা আমার ভালো লাগে।


গুণের কথা তো হলো। অপূর্বর কোন ত্রুটি বা দোষ সংশোধন করা উচিত বলে আপনি মনে করেন?
অপূর্ব সময়ের ব্যাপারে খানিকটা উদাসীন। অনেক সময় দেখা যায়, সঠিক সময়ে সঠিক কাজ করেন না। এ কারণে শুটিংয়েও অনেক সময় দেরি করে আসেন। এই বিষয়টি সংশোধন করলে তাঁর আর অন্য কোনো সমস্যা নেই। সহশিল্পী হিসেবে তিনি দারুণ।


অপূর্ব সম্পর্কে এমন একটি তথ্য দেন, যেটি পাঠক-দর্শক ও ভক্তরা জানেন না...
অপূর্বকে রোমান্টিক নাটকে বেশি দেখা যায়। রোমান্টিক নাটকে তিনি তুমুল জনপ্রিয়। কিন্তু হরর তাঁর পছন্দ। তাই এখানে সবাইকে জানালাম, তাঁকে নিয়ে হরর নাটক করতে পারেন পরিচালকেরা।


আপনাদের দুজনের একসঙ্গে করা কোন নাটকটি আপনার বেশি পছন্দের?
অবশ্যই বড় ছেলে। তা ছাড়া ব্যাচ ২৭, লাস্ট পেইজ, তুমি যদি বলো...দুজনের করা এই নাটকগুলোই আমার আমার সবচেয়ে প্রিয়।


রোমান্টিক নাটকের বাইরে আপনাদের দুজনকে অন্য ধরনের নাটকে কম দেখা যায়। এর কারণ কী?
কী বলব, বলতে পারেন এটি আমাদের কপাল।

অপূর্ব বললেন

মেহজাবীন অসম্ভব রকম ভিতু


আপনার বিপরীতে প্রিয় নায়িকা বেছে নিতে বলা হলে কার নাম বলবেন?
আমার বিপরীতে প্রিয় নায়িকা...অবশ্যই তারিন জাহান। আমি যে আজ রোমান্টিক হিরো নামে পরিচিত, এর বেশির ভাগ কৃতিত্ব তারিন জাহানের। রোমান্টিক অভিনয়ের অনেক কৌশলই আমি তাঁর কাছ থেকে শিখেছি।


মেহজাবীনের কোন গুণটি আপনার ভালো লাগে?
মেহজাবীন শান্ত স্বভাবের মানুষ। সব সময় নিয়মানুবর্তিতার মধ্যে থাকতে চেষ্টা করেন। যেকোনো কাজ তিনি খুবই গুরুত্ব দিয়ে করেন। তাঁর এই গুণগুলো আমার দারুণ পছন্দের।


গুণের কথা তো হলো। মেহজাবীনের কোন ত্রুটি বা দোষ সংশোধন করা উচিত বলে আপনি মনে করেন?
যেকোনো বিষয়ে মেহজাবীন খুব সহজেই আপসেট হয়ে যান। তাঁর এই বিষয়টি সংশোধন করা উচিত। আসলে জীবনটা সহজ না। কঠিন। বাস্তবতা মানতে হবে।


মেহজাবীন সম্পর্কে এমন একটি তথ্য দেন, যেটি পাঠক-দর্শক ও ভক্তরা জানেন না...
মেহজাবীন অসম্ভম রকম ভিতু। ভূতের গল্প তো দূরের কথা, ভূতের নাম শুনলেই তিনি ভয়ে লাফ দিয়ে ওঠেন।


আপনাদের দুজনের একসঙ্গে করা কোন নাটকটি আপনার বেশি পছন্দের?
বড় ছেলে তো বটেই। এর বাইরে ব্যাচ ২৭, লাস্ট পেইজ, তুমি যদি বলো...এই নাটকগুলো আমার প্রিয়।


রোমান্টিক নাটকের বাইরে আপনাদের দুজনকে অন্য ধরনের নাটকে কম দেখা যায়। এর কারণ কী?
আমার ধারণা, টেলিভিশন প্রতিষ্ঠানগুলো এবং দর্শকের কাছে আমাদের দুজনের রোমান্টিক নাটকের চাহিদা বেশি। সম্ভবত এ কারণেই পরিচালক-প্রযোজকেরা আমাদের নিয়ে রোমান্টিক নাটকের বাইরে খুব একটা ভাবেন না।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন