দায়িত্ব পাওয়ার পর পূর্বসূরি জো রুটকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন স্টোকস, ‘ইংলিশ ক্রিকেটের জন্য যা কিছু করেছে, সঙ্গে বিশ্বজুড়ে আমাদের খেলার দারুণ দূত হিসেবে কাজ করার জন্য জোকে (রুট) ধন্যবাদ জানাই। ড্রেসিংরুমে নেতা হিসেবে আমার গড়ে ওঠার পেছনে অনেক বড় ভূমিকা তার। এ পদেও আমার অন্যতম সহযোগী হবে সে।’

আর অধিনায়কত্ব পাওয়ার অনুভূতি নিয়ে স্টোকস বলেছেন, ‘ইংল্যান্ড টেস্ট দলকে নেতৃত্ব দেওয়ার সুযোগ পেয়ে সম্মানিত আমি। এটা অনেক বড় একটা প্রাপ্তি। এ গ্রীষ্মে দায়িত্ব শুরু করে দেওয়ার জন্য রোমাঞ্চিত আমি।’

গত অ্যাশেজে ভরাডুবির পর প্রধান কোচ ও ছেলেদের ক্রিকেটের ব্যবস্থাপনা পরিচালককে সরিয়ে দিয়েছিল ইসিবি। তবে টিকে গিয়েছিলেন তখনকার অধিনায়ক জো রুট। অবশ্য ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে সিরিজ হারের পর নিজে থেকেই সরে দাঁড়ান রুট, যিনি ইংল্যান্ডের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি ম্যাচে অধিনায়কত্ব করা ক্রিকেটার।

default-image

রুট চলে যাওয়ার পর সম্ভাব্য উত্তরসূরি হিসেবে স্টোকসের নামই ঘুরেফিরে এলেও অনিশ্চয়তা ছিল তাঁর ফিটনেস ও মানসিক অবস্থার কারণে। এর আগে আঙুলের চোট ও মানসিক স্বাস্থ্যের দিকে নজর দিতে অনির্দিষ্টকালের বিরতিতে গিয়েছিলেন স্টোকস। তবে রব কি বলেছেন, স্টোকসকে অধিনায়কত্বের প্রস্তাব দেওয়ার ক্ষেত্রে কোনো দ্বিধা ছিল না তাঁর। প্রস্তাব গ্রহণ করায় খুশি তিনি, ‘আমরা লাল বলের ক্রিকেটে যে নতুন যুগে এ দলকে নিয়ে যেতে চাই, সে মানসিকতা ও ধারার প্রতীক সে। বাড়তি দায়িত্ব ও সম্মান নেওয়ার জন্য সে প্রস্তুত। আমি খুশি, সে প্রস্তাবে রাজি হয়েছে। তার এ সুযোগটা প্রাপ্য।’

রব কির মতো উচ্ছ্বসিত প্রতিক্রিয়া ইসিবির প্রধান নির্বাহী টম হ্যারিসনেরও, ‘বেন ইংল্যান্ডের টেস্ট অধিনায়কত্বের দায়িত্ব নিতে রাজি হয়েছে বলে দারুণ খুশি আমি। ইংল্যান্ডের জার্সিতে তার অসাধারণ ক্যারিয়ারের এটি আরেকটি দারুণ অর্জন।’

২০১৩ সালে অভিষেকের পর থেকে এখন পর্যন্ত ইংল্যান্ডের হয়ে ৭৯টি টেস্ট খেলেছেন স্টোকস। ২০১৭ সালে রুটের সহ-অধিনায়কের দায়িত্ব পান তিনি। ২০২০ সালে পিতৃত্বকালীন ছুটিতে থাকা রুটের অনুপস্থিতিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে একটি টেস্টে অধিনায়কত্বের দায়িত্বও পালন করেন। গত বছর করোনাভাইরাসের কারণে পুরো দল আইসোলেশনে চলে যাওয়ার পর পাকিস্তানের বিপক্ষে তিনটি ওয়ানডেতেও অধিনায়কত্ব করেন তিনি।

পূর্ণ মেয়াদে দায়িত্ব পাওয়ার পর সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে আনুষ্ঠানিকভাবে কথা বলেননি স্টোকস, পরের সপ্তাহে ডারহামে কথা বলবেন। তবে এর আগে সংবাদমাধ্যমে এসেছে, অধিনায়কত্বের প্রস্তাবে রাজি হওয়ার সঙ্গে নিজের চাহিদার কথাও জানিয়েছেন স্টোকস। এর মধ্যে আছে দুই অভিজ্ঞ পেসার জেমস অ্যান্ডারসন ও স্টুয়ার্ট ব্রডকে দলে ফেরানো। অ্যাশেজের পর ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে বাদ দেওয়া হয়েছিল দুজনকেই।

মন্তব্য করুন