পাকিস্তানের ইতিহাসই বলছে, পরিবর্তনটা অবশ্যম্ভাবী। পাকিস্তানে ক্ষমতার পালাবদলের সঙ্গে অতীতেও ক্রিকেটের নেতৃত্বে পরিবর্তন এসেছে। পাকিস্তানের গণমাধ্যম জানাচ্ছে, রমিজ রাজার বদলে পিসিবির নতুন চেয়ারম্যান হতে পারেন নাজাম শেঠি। পাকিস্তানের সম্ভাব্য নতুন প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফের ঘনিষ্ঠ তিনি। এ ব্যাপারে আলোচনা নাকি এরই মধ্যে শুরু হয়ে গেছে। পিসিবির চেয়ারম্যানকে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীই নিয়োগ দেন।

৭৩ বছর বয়সী শেঠি পাকিস্তান ক্রিকেটের পুরোনো ও পরিচিত মুখ। তিনি ২০১৩ সালে চেয়ারম্যান থাকা অবস্থায় জাকা আশরাফের সঙ্গে আইনি লড়াইয়ে জড়িয়ে পড়েছিলেন। ২০১৪ সালে শাহরিয়ার খানকে চেয়ারম্যান করার পর তাঁকে নির্বাহী কমিটির প্রধান করা হয়। নেপথ্যে থেকে পিসিবির হর্তাকর্তা তখন তিনিই ছিলেন।

২০১৭ সালের আগস্টে শেঠি আবার পিসিবির চেয়ারম্যান হন। কিন্তু ২০১৮ সালের জুলাইয়ে অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনে জিতে ইমরান খানের রাজনৈতিক দল তেহরিক-ই-ইনসাফ সরকার গঠন করলে তাঁকে চেয়ারম্যান পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। সে সময় চেয়ারম্যান হন এহসান মানি। মানি চেয়াম্যান হিসেবে তাঁর মেয়াদ পূর্ণ করলে গত বছরের সেপ্টেম্বরে রমিজ রাজাকে চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ দেন ইমরান খান। পাকিস্তানের সরকারপ্রধানই সাধারণত পিসিবির প্রধান পৃষ্ঠপোষকের ভূমিকায় থাকেন।

পিসিবির চেয়ারম্যান হিসেবে রমিজ রাজা সাফল্যের সঙ্গেই কাজ করছেন। তিনি আসার পর ২৪ বছরের মধ্যে প্রথম পাকিস্তান সফর করেছে অস্ট্রেলিয়া। অথচ দায়িত্ব নিয়ে শুরুতে কিছুটা বিপাকেই পড়েছিলেন রমিজ। সেপ্টেম্বরেই নিরাপত্তাহীনতার কারণ দেখিয়ে পাকিস্তান থেকে ওয়ানডে সিরিজ না খেলেই দেশে ফিরে যায় নিউজিল্যান্ড। সফর বাতিল করে ইংল্যান্ড। তবে রমিজ রাজার কূটনৈতিক তৎপরতায় দুটি দলই পাকিস্তান সফরে ফেরার কথা ঘোষণা করে। তিনি পিএসএলকে আরও লাভজনক করার বিভিন্ন উদ্যোগ নিচ্ছেন। সম্প্রতি তিনি ভারত, অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড ও পাকিস্তানকে নিয়ে একটি চার জাতি টুর্নামেন্টের প্রস্তাব দিয়েছিলেন। যাতে পিসিবির প্রায় পাঁচ হাজার কোটি টাকা আয়ের সম্ভাবনা তৈরি হয়েছিল।