default-image

কোনো সিরিজ বা টুর্নামেন্টের জন্য বাংলাদেশ দলের নাম ঘোষণা করলে শুরুর দিকে কিংবা মাঝামাঝিতে থাকে তাঁর নাম। সেই সাকিব আল হাসানের নাম এবার বিসিবির সংবাদ বিজ্ঞপ্তির সব শেষে থাকল। সাকিব যে এশিয়া কাপের দলে থেকেও নেই, আবার না থেকেও আছেন। নিষেধাজ্ঞার কারণে বাংলাদেশের প্রথম দুই ম্যাচে খেলতে পারবেন না দেশের সেরা এই অলরাউন্ডার।

সাকিবকে নিয়েই ১৫ জনের দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ। সেই দলে নাম নেই তামিম ইকবাল ও মাহমুদউল্লাহও। চোটের কারণে তামিম শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের একটি ম্যাচেও খেলেননি। সামনে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপকে মাথায় রাখা হয়েছে জন্যেই এশিয়া কাপের দলে রাখা হয়নি তাঁকে। মাহমুদউল্লাহর বাদ পড়ার কারণ বাজে ফর্ম। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দলে রাখা না হলেও এশিয়া কাপের দলে আছেন জিয়াউর রহমান।
বিসিবির প্রধান নির্বাচন ফারুক আহমেদ বলেন, ‘দলের সাত নম্বর জায়গাটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এ কারণেই জিয়া দলে ফিরেছে। ঘরোয়া ক্রিকেটে ও ভালো ফর্মে আছে, ধারাবাহিক পারফর্মও করছে।’ তামিমের ব্যাপারে তাঁর বক্তব্য, ‘তামিমকে এশিয়া কাপে খেলাব না আমরা। ও এখনো চোট থেকে পুরো সেরে ওঠেনি। ওর ফিরতে আরও এক সপ্তাহের মতো লাগতে পারে। বর্তমান পরিস্থিতিতে ওকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পুরো ফিট পাওয়াই আমাদের কাছে অগ্রাধিকার পাচ্ছে।’
সাকিবের অভাব তো দল অবশ্যই অনুভব করবে। তবে সেটা নিয়ে আক্ষেপের সুযোগ নেই নির্বাচকদের। এ কারণেই দলে দুজন বাড়তি বাঁ হাতি স্পিনার রাখা হয়েছে। দলের বর্তমান ফর্ম নিয়েও চিন্তিত নন ফারুক, ‘আমরা কিন্তু অতটা খারাপ খেলছি না। একটা-দুটো ম্যাচে শুধু জিততে হবে। আমি আত্মবিশ্বাসী, দলের খেলোয়াড়েরা এশিয়া কাপের হতাশা দ্রুতই মুছে ফেলে দারুণভাবে ফিরে আসবে।’

বাংলাদেশ দল: মুশফিকুর রহিম (অধিনায়ক), এনামুল হক, ইমরুল কায়েস, শামসুর রহমান, নাঈম ইসলাম, মুমিনুল হক, নাসির হোসেন, আরাফাত সানি, জিয়াউর রহমান, আবদুর রাজ্জাক, সোহাগ গাজী, মাশরাফি বিন মুর্তজা, রুবেল হোসেন, আল আমিন হোসেন এবং সাকিব আল হাসান (নিষেধাজ্ঞা শেষে দলে ফিরবেন)।

বিজ্ঞাপন
খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন