default-image

২০১৯ সালে রুবেলের মস্তিষ্কে ক্যানসার ধরা পড়ে। এরপর সিঙ্গাপুরে অস্ত্রোপচার করে টিউমার অপসারণ করা হয়। ২৪টি কেমোথেরাপি লেগেছিল তাঁর। এরপর মোটামুটি সুস্থ হয়ে উঠেছিলেন তিনি। কিছুদিন আগে নতুন করে টিউমার ধরা পড়ে তাঁর মস্তিষ্কে। অবশ হয়ে যায় শরীরের একদিক। গত মাসে তাঁকে ভর্তি করা হয় হাসপাতালে। তবে প্রায় এক মাস পর ১৫ এপ্রিল হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরেছিলেন রুবেল।

আজ আবারও অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। তাঁকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। তবে সেখানকার চিকিৎসকেরা রুবেলকে মৃত ঘোষণা করেন।

রুবেলের বাঁচার লড়াইটা লম্বাই। সিঙ্গাপুরে অস্ত্রোপচার ও সফল কেমোথেরাপির পর মনে হয়েছিল, তিনি সুস্থই হয়ে উঠেছেন। কিন্তু গত জানুয়ারি মাসে তাঁর মস্তিষ্কে নতুন করে টিউমার ধরা পড়ে। আবারও শুরু হয় কেমোথেরাপি। নিতে হয় নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ)। তাঁর শারীরিক অবস্থা ভালো–মন্দের মধ্য দিয়েই যাচ্ছিল। চিকিৎসার ব্যয় মেটাতে হিমশিম খাচ্ছিল তাঁর পরিবার। তবে দেশের ক্রিকেটমহল তাঁর পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছে। আগামী সপ্তাহেই তাঁর আবার কেমোথেরাপি নেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সব চেষ্টা ব্যর্থ করে চলে গেলেন এই বাঁহাতি স্পিনার।

default-image

৪০ বছর বয়সী মোশাররফ রুবেল দেশের হয়ে ৫ ওয়ানডেতে পেয়েছেন ৪ উইকেটে। ২০০৮ সালে চট্টগ্রামে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তাঁর অভিষেক। খুব নিয়মিত কখনোই হতে পারেননি। সর্বশেষ জাতীয় দলে খেলেছেন ২০১৬ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে।

মোশাররফ রুবেল প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলেছেন ১১২টি, লিস্ট ‘এ’ ১০৪টি। ঘরোয়া টি–টোয়েন্টি খেলেছেন ৫৬টি। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ৩৯২ উইকেট তাঁর। সেরা বোলিং ৯/১০৫। লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে তিনি উইকেট নিয়েছেন ১২০টি। টি–টোয়েন্টিতে ৬০ উইকেট তাঁর।

ঘরোয়া ক্রিকেটে বরিশাল বিভাগ, মধ্যাঞ্চলের হয়ে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট খেলেছেন। বিপিএলে খেলেছেন ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্স, খুলনা টাইটানস প্রভৃতি দলে।

মন্তব্য করুন