বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দ্য টেলিগ্রাফ জানিয়েছে, সংসদীয় কমিটির সামনে রফিকের সাক্ষ্যর পর আরও এমন অভিযোগের আশা করছেন সে কমিশনের সংগঠকেরা। ৯ নভেম্বর গঠিত এ কমিশনের চেয়ারম্যান সিন্ডি বুটস বলেছেন, ‘এক হাজারের বেশি মানুষ তাঁদের অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন আমাদের। আজিমের সাহসিকতায় অনুপ্রাণিত হয়ে এগিয়ে আসা এ খেলার বিভিন্ন অঙ্গনের মানুষের কথা শোনা গুরুত্বপূর্ণ।’

default-image

গতকাল এক সংসদীয় কমিটির সামনে উপস্থিত হয়ে বর্ণবাদের শিকার হওয়ার নিজের বিভিন্ন অভিজ্ঞতার কথা শুনিয়েছেন ইয়র্কশায়ার ও ইংল্যান্ড অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সাবেক অধিনায়ক রফিক। ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক মাইকেল ভন থেকে শুরু করে ব্যাটসম্যান গ্যারি ব্যালান্সের কথাও সরাসরি বলেছেন রফিক। ভন এরই মাঝে অভিযোগ সরাসরি অস্বীকার করলেও ব্যালান্স ক্ষমা চেয়েছেন রফিকের কাছে।

ফোন করে ক্ষমা চেয়েছেন সাবেক পেসার ম্যাথু হগার্ডও, জানিয়েছেন রফিক। বর্ণবাদের কাছেই নিজের ক্রিকেট ক্যারিয়ার আরও বড় করার স্বপ্ন বিসর্জন দিতে হয়েছে বলেও জানিয়েছেন সাবেক এ খেলোয়াড়। ইয়র্কশায়ারে খেলার সময় অশ্বেতাঙ্গ ক্রিকেটারদের ভিন্ন নামে ডাকা, এশিয়ান ক্রিকেটারদের উদ্দেশে কটূক্তিমূলক কথাবার্তাসহ বিভিন্ন অভিযোগ করেছেন রফিক।

গত বছর ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার আন্দোলন নতুন করে সামনে আসার পর সেপ্টেম্বরে প্রথম মুখ খুলেছিলেন রফিক। এরপর ইয়র্কশায়ার নিজস্ব তদন্ত চালিয়ে গেলেও সেটির প্রতিবেদন প্রকাশ করেনি। রফিকের বিভিন্ন অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে জানানো হলেও কারও বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থাও নেয়নি ক্লাবটি।

আপাতত আন্তর্জাতিক ক্রিকেট আয়োজন থেকে ক্লাবটিকে নিষিদ্ধ করেছে ইসিবি। ক্লাবটির সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করেছে পৃষ্ঠপোষকেরাও। এরপর এক সংসদীয় কমিটি ডেকে পাঠায় রফিককে। সে কমিটির সামনে হাজির হয়েছিলেন ইয়র্কশায়ারের সদ্য সাবেক চেয়ারম্যান, ইসিবির প্রধান নির্বাহীও।

খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন