বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সিরিজ শুরুর আগে ব্যাটসম্যানদের র‍্যাঙ্কিংয়ে ৩২ নম্বরে ছিলেন লিটন। ২০১৫ সালে অভিষিক্ত ২৭ বছর বয়সী ডানহাতি ব্যাটসম্যান গত নভেম্বরে পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ চলাকালে নিজের আগের ক্যারিয়ার–সেরা ৩১ নম্বরে উঠেছিলেন তিনি।

default-image

বাংলাদেশ ব্যাটসম্যানদের মধ্যে র‍্যাঙ্কিংয়ে এখন লিটনই সবার আগে। দ্বিতীয় টেস্টে চোটের কারণে না থাকা মুশফিকুর রহিম ৩ ধাপ পিছিয়ে আছেন ২৫ নম্বরে। অধিনায়ক মুমিনুল হকের অবস্থান ৩৭ নম্বরে, ২ ধাপ নিচে নেমে গেছেন তিনিও।

অবশ্য লিটনের পাশাপাশি নিউজিল্যান্ড সিরিজের পর উন্নতি হয়েছে দুই পেসার ইবাদত হোসেন ও শরীফুল ইসলামেরও। মাউন্ট মঙ্গানুইয়ে বাংলাদেশের ঐতিহাসিক জয়ের নায়ক ইবাদত এগিয়েছেন ১৭ ধাপ, উঠে এসেছেন ৮৮ নম্বরে। দ্বিতীয় ইনিংসে ক্যারিয়ার–সেরা ৪৬ রানে ৬ উইকেটসহ ম্যাচে ৭ উইকেট নিয়েছিলেন ডানহাতি পেসার। অন্যদিকে বাঁহাতি পেসার শরীফুল ৩৪ ধাপ এগিয়ে উঠে এসেছেন ১০৪ নম্বরে।

বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজের পর বড় লাফ দিয়েছেন নিউজিল্যান্ড পেসার কাইল জেমিসনও। দ্বিতীয় টেস্টে ১১৪ রানে ৬ উইকেট নিয়েছেন এই ডানহাতি, ৮ ধাপ এগিয়ে ৩ নম্বরে উঠে এসেছেন তিনি। এক ধাপ এগিয়ে পাঁচে উঠে এসেছেন দক্ষিণ আফ্রিকা পেসার কাগিসো রাবাদা।

default-image

অ্যাশেজে সিডনিতে চতুর্থ টেস্টে জোড়া শতকের পর র‍্যাঙ্কিংয়ে অবস্থান ফিরে পেয়েছেন অস্ট্রেলিয়া ব্যাটসম্যান উসমান খাজা। তিনি এখন ২৬ নম্বরে আছেন।

টেস্ট ব্যাটসম্যানদের র‍্যাঙ্কিংয়ে আগের মতোই শীর্ষে আছেন মারনাস লাবুশেন। সিডনিতে সর্বশেষ টেস্টে ২৮ ও ২৯ রান করলেও ইংল্যান্ড অধিনায়ক জো রুটের চেয়ে এগিয়ে আছেন তিনি। রুট সে টেস্টে করেছেন ২৪ রান। অন্যদিকে জোহানেসবার্গে ম্যাচজয়ী ৯৬ রানের অপরাজিত ইনিংসের পর চার ধাপ এগিয়ে ১০–এ উঠেছেন দক্ষিণ আফ্রিকা অধিনায়ক ডিন এলগার।

খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন