বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের রীতি অনুযায়ী চ্যাম্পিয়ন-রানার্সআপ দলকে ট্রফি দেওয়া হয় সংশ্লিষ্ট দলের শেষ ম্যাচে। কিন্তু এবার প্রিমিয়ার লিগে হ্যাটট্রিক চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস চ্যাম্পিয়ন ট্রফি চেয়েছে শেষ ম্যাচের আগের ম্যাচে। ২১তম রাউন্ডে যে ম্যাচটি আগামী পরশু সোমবার তারা নিজেদের ভেন্যু কিংস অ্যারেনায় খেলছে রানার্সআপ আবাহনীর সঙ্গে।

দুই দলই দুই ম্যাচ হাতে রেখে চ্যাম্পিয়ন-রানার্সআপ হয়ে যাওয়ায় এই ম্যাচটি শুধুই মর্যাদার। আর এই ম্যাচেই ট্রফি চেয়ে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) কাছে আজ চিঠি দিয়েছে কিংস। শুধু তা–ই নয়, এ ম্যাচে ট্রফি না দিলে পরে তারা ট্রফি গ্রহণ করবে না বলেও বাফুফেকে জানিয়েছে।

বসুন্ধরা কিংসের সাধারণ সম্পাদক বিদ্যুৎ কুমার ভৌমিক স্বাক্ষরিত বাফুফে সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈমকে পাঠানো চিঠিতে বলা হয়েছে, ২৫ জুলাই কিংস অ্যারেনায় খেলবে চ্যাম্পিয়ন-রানার্সআপ দুই দলই।

সেদিন মাঠে বাফুফে কর্মকর্তা, বিভিন্ন অতিথিসহ সংবাদমাধ্যমও মাঠে থাকবে। পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান আয়োজনে বসুন্ধরা গ্রুপ সম্ভব সব রকমের সহায়তা করবে। কাজেই সেদিন পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানটা করলে ভালো।

তা ছাড়া এক ম্যাচ আগে থাকতে ট্রফি দেওয়ার পেছনে কারণ হিসেবে কিংস দেখিয়েছে, দুই দলেরই শেষ ম্যাচ ঢাকার বাইরে। ফলে ভিন্ন ভিন্ন মাঠে দুই দলকে পুরস্কার দেওয়া, বাফুফে কর্মকর্তাদের ঢাকার বাইরে যাওয়ার একটা ঝামেলা থাকবে।

তিন আঙুল দেখিয়ে হ্যাটট্রিক শিরোপার কথাই যেন বলছেন বিপলু আহমেদ ও সোহেল রানা
ছবি: প্রথম আলো

তাই ২৫ জুলাই পুরস্কার বিতরণীর অনুরোধ জানিয়েছে ক্লাবটি। কিন্তু চিঠির শেষ অংশটা নিয়ে আলোচনা চলছে। তাতে বলা হয়েছে, ২৫ জুলাই ট্রফি না দিলে পরে ট্রফি তারা নেবে না।

এ ব্যাপারে বাফুফের পেশাদার লিগ কমিটির সভাপতি সালাম মুর্শেদীর সঙ্গে যোগাযোগ করলেও তিনি ফোন ধরেননি। ফোন ধরেননি বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাইমও। তবে বাফুফে সচিবালয়ের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, শেষ ম্যাচের আগের ম্যাচের পুরস্কার প্রদানের কোনো নির্দেশনা তাঁর কাছে আসেনি বাফুফের শীর্ষ মহল থেকে।

১ আগস্ট মুন্সিগঞ্জে শেখ জামাল ধানমন্ডির সঙ্গে কিংসের শেষ ম্যাচেই ট্রফি দেওয়ার পূর্বপরিকল্পনাই বহাল আছে। একই দিনে আবাহনী লিমিটেডের শেষ ম্যাচ গোপালগঞ্জে উত্তর বারিধারার সঙ্গে, সেদিনই তাদের রানার্সআপ ট্রফি দেওয়া হবে। এ ছাড়া দেওয়া হবে ফেয়ার প্লে ট্রফি। এবার কোন দল ফেয়ার প্লে ট্রফি পাবে, তা এখনো চূড়ান্ত হয়নি বলে বাফুফে সূত্র জানিয়েছে।

বাফুফে সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, লিগের শেষ ম্যাচেই ট্রফি দেওয়া হবে, এমন কোনো লিখিত আইন নেই। তবে ২০০৭ সালে পেশাদার লিগ শুরুর পর থেকে শেষ ম্যাচে ট্রফি দেওয়া রীতিতে পরিণত হয়েছে। এবারও অনুসরণ করা হচ্ছে তা।

কিংসের অনুরোধ মেনে শেষ ম্যাচের আগের ম্যাচে ট্রফি দিলে কী সমস্যা—প্রশ্ন করলে ওই কর্মকর্তা বলেন, ‘সব ম্যাচ শেষ হওয়ার আগেই ট্রফি দিয়ে দিলে নানা সমস্যা হতে পারে। শেষ ম্যাচ নিয়ে কোনো প্রশ্ন বা অভিযোগ উঠতে পারে। এসব বিবেচনা করে শেষ ম্যাচেই বাফুফে ট্রফি দিয়ে আসছে।’

কিংসের খেলোয়াড়দের গোল উদৃযাপন
ছবি: প্রথম আলো

তবে সব দিক ভেবে কিংস নিজেদের মাঠে এক ম্যাচ আগে জমজমাট আবহে ট্রফি চাইতেই পারে। কিন্তু সেদিন ট্রফি না দিলে পরে আর ট্রফি গ্রহণ করা হবে না কিংসের এমন অবস্থানে অনেকেই অবাক। শেখ জামাল ধানমন্ডির ফুটবল কমিটির চেয়ারম্যান সাবেক ফুটবলার আশরাফ উদ্দিন আহমেদ চুন্নু বলেন, ‘সবারই নিয়ম মানা উচিত। নিয়মের বাইরে কেউ নয়।’