বিজ্ঞাপন

এর মধ্য দিয়ে চলতি বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ৩৭ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যানের খেলার সম্ভাবনাও শেষ হয়ে গেল। জাতীয় দল ছাড়ার পর ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট খেলে যাচ্ছেন ডি ভিলিয়ার্স।

এ বছর রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর হয়ে তিনি আইপিএলে খেলার সময় সংবাদমাধ্যমে গুঞ্জন উঠেছিল, দক্ষিণ আফ্রিকা জাতীয় দলে ফিরতে প্রোটিয়াদের কোচ মার্ক বাউচারের সঙ্গে কথা বলছেন ডি ভিলিয়ার্স। অক্টোবর-নভেম্বরে অনুষ্ঠেয় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ সামনে রেখে এ গুঞ্জন উঠেছিল।

কিন্তু সিএসএ আজ জানিয়েছে, ডি ভিলিয়ার্সের সঙ্গে তাঁর ফেরা নিয়ে আলোচনা শেষ হয়েছে। তবে ইতিবাচক কোনো নতুন খবর জানাতে পারেনি বোর্ড। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি ও টেস্ট সিরিজ সামনে রেখে গড়া স্কোয়াড নিয়েই কথা হয়েছে বেশি। তবে বাউচারের সঙ্গে কথা চলাকালে ডি ভিলিয়ার্স জাতীয় দলে ফেরার ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন, ‘গত বছর সে (বাউচার) জানতে চেয়েছিল, আমি আগ্রহী কি না। বলেছিলাম, অবশ্যই।’

ডি ভিলিয়ার্স ২০১৮ সালের মে মাসে অবসর নেওয়ার পর থেকেই নিয়মিত বিরতিতে তাঁর ফেরার গুঞ্জন চাউর হয়েছে। ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপের আগে ফিরে আসার সবচেয়ে কাছাকাছি ছিলেন ওয়ানডেতে দ্রুততম সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়া এই ব্যাটসম্যান। সংবাদমাধ্যম তখন জানিয়েছিল, একেবারে শেষ মুহূর্তে দক্ষিণ আফ্রিকা দলে ফেরার কথা বলেছিলেন তিনি। কিন্তু প্রোটিয়া টিম ম্যানেজমেন্ট তখন সাড়া দেয়নি।

দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক অধিনায়ক গ্রায়েম স্মিথ বোর্ডের পরিচালক হওয়ার পর এবং বাউচার কোচ হওয়ার পর ডি ভিলিয়ার্সের ফেরার সম্ভাবনা উজ্জ্বল হয়েছিল। দুজনই ছিলেন তাঁর সাবেক সতীর্থ। বোঝাপড়াটাও ভালো, কিন্তু সেই বোঝাপড়ার সুবাদেও ডি ভিলিয়ার্সের ফেরার দ্বার খোলা গেল না।

দক্ষিণ আফ্রিকার ইতিহাসে ডি ভিলিয়ার্স সেরা ব্যাটসম্যানদের একজন। টেস্টে দেশটির চতুর্থ সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক এবং ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক তিনি। টি-টোয়েন্টিতে তাঁকে অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান হিসেবে দেখা হয়। এবার করোনা মহামারিতে আইপিএল স্থগিত হওয়ার আগে দারুণ ফর্মে ছিলেন ডি ভিলিয়ার্স। ৬ ইনিংসে ১৬৪.২৮ স্ট্রাইকরেটে ২০৭ রান করেছিলেন তিনি।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন