রাচাকোন্ডা পুলিশ জানিয়ছে, তারা সবাই অনলাইন জুয়ার সঙ্গে জড়িত। ১১ লাখ ৮০ হাজার নগদ রুপিসহ (বাংলাদেশি মুদ্রায় ১৩ লাখ ৪২ হাজার টাকা) মোট ৫৬ লাখ রুপির (৬৩ লাখ ৬৯ হাজার টাকা) মালামাল জব্দ করেছে পুলিশ। গতকাল রাজস্থান রয়্যালস ও রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর ম্যাচের আগে বাজির ‘বুকিং’ নেওয়ার সময় অভিযান চালিয়ে ওই সাত জুয়াড়িকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

এই চক্রের হোতা তান্নিরু নাগারাজু এর আগেও ২০১৬ সালে একই কারণে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন। জুয়াড়িরা টেলিফোনের মাধ্যমে বাজি নিয়ে থাকে। বাজি শুরু হয় ম্যাচের প্রথম বলের পর, চলে শেষ বল পর্যন্ত। ম্যাচের পরিস্থিতির ওপর বাজির দর ওঠানামা করে। ম্যাচ চলাকালে জুয়াড়িদের কাছে ফোন করে বাজি ধরা হয়। ম্যাচ শেষে এজেন্টদের মাধ্যমে নগদ বা অনলাইনে বাজির অর্থ সংগ্রহ করেন জুয়াড়িরা।

ভারতজুড়ে এমন অনেক জুয়াড়ি চক্র কাজ করছে। সবাইকে হয়তো ধরতে পারবে না পুলিশ। এ কারণে পুলিশ কমিশনার তরুণদের কাছে একটি অনুরোধ করেছেন, ‘এটা অনেকের কাছে মজার বিষয় হতে পারে। কিন্তু এক দিনের মজার জন্য জীবনের বাকি সময়টায় ভুগতে হতে পারে।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন