আইপিএলে কোটি টাকার খেলোয়াড় মানেই কিন্তু পারফরম্যান্সের নিশ্চয়তা নয়। দল গঠনের সময় বা নিলামে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো ‘ফাটকা’ খেলে থাকে ঝুঁকিটাকে মাথায় রেখেই। অনেক সময় দেখা যায় অনেক কম টাকায় দলে নেওয়া খেলোয়াড়েরাই বাজিমাত করেন, দুর্দান্ত সব পারফরম্যান্সে দলকে সাফল্য এনে দেন। কোটি টাকায় কেনা খেলোয়াড়েরা আবার হয়ে যান ‘সুপার ফ্লপ’। দল জেতানো পারফরম্যান্স দূরে থাকুক, নিজেদের চেনা পারফরম্যান্সটাও পাওয়া যায় না তাঁদের কাছ থেকে। এটা দুর্ভাগ্য ছাড়া আর কিছুই নয়। অনেক সময় নির্দিষ্ট কোনো খেলোয়াড়ের দামটা আকাশ ছুঁয়ে যায়, অপ্রত্যাশিতভাবেই। তিনি কখনো ভালো করেন, কখনো নয়। এবারের আইপিএলেও এমন বেশ কয়েকজন খেলোয়াড় আছেন, যাঁরা নিলামের সময় ব্যাপক আলোচনার জন্ম দিয়ে মাঠের পারফরম্যান্সে মৌন। সেই খেলোয়াড়েরা কারা? আসুন দেখে নেওয়া যাক...

default-image
বিজ্ঞাপন

গ্লেন ম্যাক্সওয়েল

চলতি আইপিএলটা স্মৃতিপট থেকে মুছে ফেলতে চাইবেন অস্ট্রেলিয়ার তারকা গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। ভবিষ্যতে কখনো যদি ২০২০ আইপিএলের প্রসঙ্গ ওঠে, তাহলে তিনি মুখ লুকানোর জায়গাও খুঁজতে পারেন। এতই বাজে তাঁর পারফরম্যান্স। অথচ নিলামে তাঁকে ১০ দশমিক ৭৫ কোটি রুপিতে দলে নিয়েছিল কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। তাদের প্রত্যাশা ছিল ম্যাক্সওয়েল প্রতি ম্যাচেই ছক্কা হাঁকিয়ে মাত করে দেবেন গ্যালারি, দলকে জিতিয়ে ফিরবেন গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে। কিন্তু বিধি বাম! ম্যাক্সওয়েল যে এখনো সাড়ে ১০ কোটি রুপির প্রতি সুবিচার করতে পারেননি। ১৩ ইনিংস খেলে তাঁর সর্বোচ্চ সংগ্রহ মাত্র ৩২—এ নিশ্চয়ই তাঁর অর্থমূল্য বা নামের সুনামের সঙ্গে যায় না। ব্যাপারটা এমন দাঁড়িয়েছে যে কবে পাঞ্জাবের স্কোয়াড থেকে বাদ পড়েন, সেটিই এখন দেখার বিষয়।

default-image

রবিন উথাপ্পা

একসময় ভারতীয় দলের সম্ভাবনাময় ক্রিকেটার ছিলেন। সুযোগও পেয়েছিলেন অনেক। কিন্তু টিকতে পারেননি দলে। তবে আইপিএলের অন্যতম সেরা তারকা হিসেবেই এত দিনে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। চার হাজারের ওপর রান তাঁর এই টি-টোয়েন্টি লিগে। তাঁকে নিয়ে ‘ফাটকা’ খেলেনি রাজস্থান রয়্যালস। জেনে-বুঝেই উথাপ্পাকে দলে নিয়েছিল তারা। দাম উঠেছিল তিন কোটি রুপি। কিন্তু মাঠের খেলায় এবার তিনি সুপার ফ্লপ। ১১ ম্যাচে মাত্র ১৯০ রান করেছেন। যদিও রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে ফর্মে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন ৪১ রান করে। কিন্তু এরপরও নামের প্রতি সুবিচার নেই তাঁর। আইপিএলে বেশ কয়েকটি ম্যাচে বড় সংগ্রহের ইঙ্গিত দিলেও অকালেই শেষ হয়েছে তাঁর ইনিংসগুলো।

default-image

কেদার যাদব

মহেন্দ্র সিং ধোনির প্রিয় খেলোয়াড়দের একজন। চেন্নাই সুপার কিংসের অন্যতম ‘দামি’ ক্রিকেটার। কিন্তু তিনি চেন্নাইয়ের হতাশারই আরেক নাম। এমনকি তাঁর বাজে পারফরম্যান্সের কারণে ধোনিকেও তীব্র সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে। ৮ ম্যাচে তাঁর ব্যাট থেকে এসেছে সর্বোচ্চ অপরাজিত ২৬। যেখানে সুরেশ রায়নার শূন্যস্থান পূরণের ভার ছিল তাঁর ওপর, সেখানে কেদার যাদব দলকে কেবল ডুবিয়েছেনই।

default-image

প্যাট কামিন্স

আইপিএল ইতিহাসের সবচেয়ে দামি বিদেশি ক্রিকেটার হয়েছিলেন এই প্যাট কামিন্স। অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটারকে ১৫ দশমিক ৫ কোটি রুপিতে দলে নিয়েছিল কলকাতা নাইট রাইডার্স। বোলার কামিন্সের ওপরই কলকাতার ভরসা বেশি ছিল, কিন্তু তিনি তেমন কিছুই করতে পারেননি। প্রথম ৫ ম্যাচে সাড়ে ১৫ কোটির কামিন্স ছিলেন উইকেটশূন্য। যদিও দিল্লি ক্যাপিটালসের বিপক্ষে ১৭ রানে ৩ উইকেট নিয়ে বেতনের প্রতি সুবিচার করেছেন। এরপর একটি ম্যাচে উইকেটশূন্য থাকার পর চেন্নাইয়ের বিপক্ষে নিয়েছেন আরও ২ উইকেট। সাকল্যে ১৩ ম্যাচে তাঁর উইকেট ৮টি। ব্যাট হাতে অবশ্য তাঁর একটি ভালো পারফরম্যান্স আছে। মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের বিপক্ষে অপরাজিত ৫৩ রানের ইনিংস তাঁর মুখ রক্ষা করেছে কিছুটা হলেও।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0