বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

তাতে কোহলির যে কিছুই আসছে যাচ্ছে না, সেটা বোঝা গেল সাম্প্রতিক আরেকটা ঘটনায়। এমনিতেও সমালোচকদের কখনো পাত্তা দেন না, এবারও সেটাই হয়েছে। স্ট্যাম্প মাইক্রোফোনে আবারও ধরা পড়েছে ভারতের টেস্ট অধিনায়কের উগ্র আচরণ। এবার কোহলির তোপে পড়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটসম্যান রাসি ফন ডার ডুসেন।

৩৭তম ওভারে মোহাম্মদ শামির এক বল ফন ডার ডুসেনের ব্যাট স্পর্শ করে উইকেটের পেছনে থাকা ঋষভ পন্তের হাতে জমা হয়। যথারীতি রিভিউ নেওয়া হয়। দেখা যায়, ব্যাট মাটিতে স্পর্শ করার কারণে সে শব্দ হয়েছে। বেঁচে যান ফন ডার ডুসেন।

স্বাভাবিকভাবে এ যাত্রায়ও এক দক্ষিণ আফ্রিকানের বেঁচে যাওয়া দেখে নিজের হতাশা আটকাতে পারেননি কোহলি। আম্পায়ার মারাইস এরাসমাসের সঙ্গে কিছুক্ষণ আলোচনা করে দ্বিতীয় স্লিপে নিজের জায়গায় ফিল্ডিং করার জন্য ফিরতে ফিরতে ফন ডার ডুসেনের সঙ্গে কথার লড়াইয়ে মেতে ওঠেন ভারত অধিনায়ক।


কথাগুলো যথারীতি স্ট্যাম্প মাইকের কল্যাণে শোনা যায় আবারও। দ্বিতীয় টেস্ট থেকেই একে অন্যকে স্লেজ করে যাচ্ছেন ফন ডার ডুসেন আর ভারতের পন্ত। জোহানেসবার্গের দ্বিতীয় টেস্টে ফন ডার ডুসেনের আউট নিয়েও বিতর্ক হয়। যে কারণে এই টেস্টে ভারতের প্রথম ইনিংসে পন্তকে স্লেজ করেন শর্ট লেগে দাঁড়ানো ফন ডার ডুসেন। সেটা শুনে ভারতের উইকেটকিপার বলেন, ‘মাথায় বুদ্ধিশুদ্ধি থাকলে নিজের মুখ বন্ধ রাখো।’

default-image

ফন ডার ডুসেনের ওই স্লেজিং ভোলেননি কোহলি। ফন ডার ডুসেনকে পেরিয়ে নিজের জায়গায় যেতে যেতে কোহলি বলেন, ‘আসলেই? তো এখন তুমি তোমার চেয়ে পাঁচ বছরের ছোট একজনের পিছে লাগবে? তারপর আবার আমাকে জিজ্ঞাসা করবে ঋষভকে স্লেজ করা যাবে কি না?’


সেঞ্চুরিয়নে প্রথম টেস্ট জিতেছিল ভারত। এরপর জোহানেসবার্গ টেস্ট জিতে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায় দক্ষিণ আফ্রিকা। কেপটাউন টেস্ট তাই দুই দলের কাছেই ছিল বাঁচা–মরার। সে লড়াইয়ে জিতেছে স্বাগতিকেরাই। কোহলির এতশত কথাও ভারতকে জেতাতে পারেনি।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন