বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

ম্যাচ–পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে আজ বাংলাদেশ দলের উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান নুরুল হাসান সে কথাই বলেছেন, ‘আমাদের টিকে থাকার লড়াইয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্যাচ গুরুত্বপূর্ণ। সবার মনোযোগ এই ম্যাচেই। কাল যদি ভালোভাবে শুরু ও শেষ করতে পারি, তাহলে হয়তো পরের ম্যাচগুলো সহজ হয়ে যাবে। পুরো দলও চাঙা হয়ে যাবে। দুই ম্যাচ হেরে অবশ্যই আমরা টুর্নামেন্টে পিছিয়ে আছি। বাংলাদেশে থাকতে আমরা সেমিফাইনালে খেলার আশার কথা বলেছি। কাল জিতলে সেই আশা টিকে থাকবে।’

default-image

প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজও জয় ছাড়া কিছু ভাবছে না। সুপার টুয়েলভে নিজেদের প্রথম দুই ম্যাচের দুটিতেই হেরেছে কাইরন পোলার্ডের দলও। টিকে থাকতে হলে ২ পয়েন্ট দরকার তাদেরও। দুই দলের সাম্প্রতিক রেকর্ড থেকেও ফেবারিট বেছে নেওয়া কঠিন। শেষ ছয় দেখায় তিনটি করে ম্যাচ জিতেছে দুই দল। সেখান থেকেই অনুপ্রেরণা খুঁজছেন নুরুল, ‘টি-টোয়েন্টিতে ছোট বা বড় দল বলে কিছু নেই। যারা ভালো খেলবে, তারাই জিতবে। আমরা খারাপ সময় এলে ভালোভাবেই ঘুরে দাঁড়াতে পারি। এখন আমরা একটা ম্যাচ জেতার জন্য অপেক্ষা করছি। কালকের ম্যাচটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে গত ২-৩টি সিরিজে আমরা ভালো খেলেছি। এটা আমাদের আরও অনুপ্রেরণা জোগাবে।’

বাজে পারফরম্যান্সের কারণে বাংলাদেশ দলকে ঘিরে নেতিবাচক আলোচনাই বেশি হচ্ছে। একটি জয়ই হয়তো সেই আবহ পাল্টে দেবে। বাংলাদেশ দলও এমন কিছুরই প্রত্যাশা করছে, ‘খারাপ করলে সমালোচনা হবে, এটাই স্বাভাবিক। তবে সেটা গঠনমূলক সমালোচনা হওয়া উচিত। আমরা খারাপ করেছি, এটা মানতেই হবে। কিন্তু এর আগে খারাপ অবস্থা থেকেই ঘুরে দাঁড়িয়েছি। যদি বাকি তিন ম্যাচে ভালো করি, তাহলে দেখবেন সব পাল্টে যাবে।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন