বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

পাকিস্তানের জিও সুপার চ্যানেলকে মালিক বলেন, ‘আমি যখন ১৯৯৩ সালে পাকিস্তান ক্রিকেট দলের অধিনায়ক হই, তখন ওয়াসিম আকরাম আর ওয়াকার ইউনিসের কাছ থেকে খুব বাজে ব্যবহার পেয়েছিলাম। তারা তো দীর্ঘদিন আমার সঙ্গে রাগে-ক্ষোভে কথাই বলত না। অধিনায়ক হিসেবে এরপরও আমি তাদের কাছ থেকে সেরাটাই বের করে আনতাম। সেটি বুদ্ধি খাটিয়ে, কৌশলে।’

দলের অধিনায়ক তিনি, দুই সতীর্থ তাঁর সঙ্গে কথাই বলেন না, তাঁরা আবার দলের সেরা বোলিং অস্ত্র। কীভাবে সব সামলাতেন মালিক? তাঁর উত্তর, ‘এটা ঠিক ওয়াসিম আর ওয়াকার আমার খুব বড় দুই অস্ত্র ছিল, তবে সেটি পেশাদারি দিক থেকে। ওরা তো আমি অধিনায়ক হওয়ার পর অনেক দিন ঠিকমতো কথাই বলেনি। ওদের হাতে যখন বল তুলে দিতাম, তখন আমার হাত থেকে সেটি তারা রীতিমতো কেড়ে নিত। তারা সে সময় পুরোপুরি নিজেদের ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সের দিকে নজর দিয়েছিল। আমিও কিছু বলিনি। কারণ, ওরা যদি ভালো করে, তাহলে আমারই লাভ। সেটি দলের জন্যই ভালো।’

default-image

কিন্তু বোলারের সঙ্গে কথা না হলে অধিনায়কত্ব করাটা নিশ্চয়ই তাঁর জন্য কঠিন ছিল। মালিক জানিয়েছেন, তিনি কেবল কৌশলে তাঁদের তাতিয়ে দিতেন, ‘আমি কেবল বলতাম, ওয়াসিম, ওয়াকার, তোমরা বিশ্বের সেরা বোলার। তোমরা যদি খারাপ কর, তাহলে লোকেই তোমাদের দিকে আঙুল তুলবে। নিজেদের সুনামের জন্যই তোমাদের ভালো করতে হবে।’

পাকিস্তানকে খুব বেশি দিন নেতৃত্ব দেননি মালিক। ১৯৯৩ সালের শেষ থেকে ১৯৯৫ পর্যন্ত তিনি পাকিস্তান দলের অধিনায়ক ছিলেন। তিনি ১২টি টেস্টে অধিনায়কত্ব করে ৭টিতে জিতেছেন। ৩৪ ওয়ানডেতে জিতেছেন ২১টি।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন