ওয়েস্ট ইন্ডিজ নারী ক্রিকেট দলের প্রধান কোচের দায়িত্ব পেয়েছেন কোর্টনি ওয়ালশ। বাংলাদেশ দলের সাবেক এ বোলিং কোচের কাঁধে মেয়েদের জাতীয় দলের দায়িত্ব তুলে দেওয়ার খবরটি নিশ্চিত করেছে ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ‘কমপক্ষে ২০২২ সাল পর্যন্ত নারী দলের উন্নতি ও প্রস্তুতির নেতৃত্ব দেবেন’ ওয়ালশ।

গত বিশ্বকাপের পর বাংলাদেশের সঙ্গে চুক্তি শেষ হয় ওয়ালশের। টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সর্বোচ্চ এ উইকেটশিকারি গত ফেব্রুয়ারি ও মার্চে অস্ট্রেলিয়ায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে কাজ করেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ নারী দলের সঙ্গে। সহকারী কোচ থেকে ধাপে ধাপে এখন তিনি পেলেন প্রধান কোচের দায়িত্ব।

ওয়ালশ জানিয়েছেন, নতুন এ দায়িত্বে তাকে কী করতে হবে সেটা তিনি ভালোভাবেই বুঝতে পেরেছেন। কিংবদন্তি এ পেসার বলেন, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেটের উন্নয়নে আমি সব সময়ই কোনো না কোনো প্রতিদান দিতে চেয়েছি। দলে জয়ের সংস্কৃতি আনতে আমার অভিজ্ঞতা, খেলাটি থেকে যা যা শিখেছি এবং সাংগঠনিক ক্ষমতা কাজে লাগবে বলে মনে করি। নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ এবং গত বছর ভারতের বিপক্ষে সিরিজে মেয়েদের সঙ্গে কাজ করেছি। আমি জানি উন্নতির জন্য কী প্রয়োজন।’

বিজ্ঞাপন

ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজের পরিচালক ও সাবেক ক্রিকেটার জিমি অ্যাডামস ওয়ালশের ভূমিকা নিয়ে বলেন, ‘আগামী দুটি নারী বিশ্বকাপ পর্যন্ত সবকিছু দেখাশোনা করবেন তিনি (ওয়ালশ)। নারী ক্রিকেটকে সামনে এগিয়ে নিতে হাই পারফরম্যান্স দলের সঙ্গেও কাজ করবেন।’ অর্থাৎ ওয়েস্ট ইন্ডিজ নারী ক্রিকেটের সার্বিক দায়িত্ব থাকছে ওয়ালশের কাঁধে। গাস লোগির কাছ থেকে প্রধান কোচের দায়িত্ব পেলেন ওয়ালশ।

২০১৬ সালে বাংলাদেশ দলের বোলিং কোচের দায়িত্ব পেয়েছিলেন ওয়ালশ। জিম্বাবুয়ের সাবেক পেসার হিথ স্ট্রিকের জায়গায় মাশরাফিদের বোলিং কোচের দায়িত্ব নিয়েছিলেন তিনি।

মন্তব্য পড়ুন 0