বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

খেলা শেষে ম্যাচসেরা লিটন শোনালেন করোনায় হারিয়ে যাওয়া সেই সময়ের কথা, ‘আমার চাওয়া তো সব সময়ই রান করা। শুধু আমি নই, প্রত্যেক ব্যাটসম্যানই চাইবে যখনই ক্রিজে যায়, রান করতে। কিন্তু কোভিডের আগে আমি একটা ভালো ধারাবাহিকতা পেয়েছিলাম, ওই সময় কোভিড না হয়ে যদি স্বাভাবিক খেলা চলত, তাহলে হয়তো সুযোগ ছিল ভালো পারফর্ম করার। কারণ, ওই সময় আমার সময় চলছিল।’

পরিসংখ্যানও তা–ই বলে। ২০২০ বিপিএলে রাজশাহী রয়্যালসের হয়ে ১৫ ইনিংসে ব্যাটিং করে ৪৫৫ রান করেছিলেন লিটন। এরপরেই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ঘরের মাঠে দুটি বিশাল সেঞ্চুরি করেছেন। করোনায় খেলা বন্ধ হয়ে গেছে এরপরেই। লম্বা বিরতির পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার পর বড় রান পাচ্ছিলেন না লিটন। ওয়ানডেতে ৮ ইনিংসে লিটনের ব্যাট থেকে আসে মাত্র ১০১ রান।

এ ব্যাপারে লিটন বলছিলেন, ‘কোভিডের পর আন্তর্জাতিকে ফেরাটা একটু কঠিন হয়ে যায়। কারণ, মাথায় অনেক চিন্তা ছিল, পারফর্ম করতে হবে, পরিস্থিতিও কঠিন ছিল। এভাবে দেখতে দেখতে আটটা ইনিংস গেছে। চেষ্টা করেছি, যত ইনিংসই খেলি না কেন, যেন ভালো করতে পারি, দলকে কিছু দিতে পারি। পাশাপাশি বড়রা সমর্থন দিয়ে গেছেন, পরিবার সমর্থন দিয়েছে, বিশেষ করে আমার স্ত্রীর কাছ থেকে সমর্থন পেয়েছি।’

default-image

ফর্মে ফেরার ম্যাচে লিটনকে নিয়ে যোগ হয়েছে চোট–শঙ্কা। ব্যাটিংয়ের সময় কবজিতে ব্যথা পেতে দেখা গেছে তাঁকে। পরে উইকেটকিপিংও করেননি কুঁচকির চোটে। তবে দিনের খেলা শেষে লিটন জানালেন স্বস্তির খবর, ‘চোট আসলে ওই রকম কিছু নয়। কবজির চোট আগেও ছিল। যে কারণে আমি আগে খেলতে পারিনি। সে জায়গাতেই হালকা ব্যথা লাগছে। এ ছাড়া কুঁচকিতে একটু চোট লেগেছে। কিন্তু আশা করি, এটা বিশ্রাম নিলে ঠিক হয়ে যাবে।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন