দ্রুত উইকেট পড়ায় আগেভাগেই নামতে হয় আফিফ হোসেনকে
সম্প্রচার শেষ ২০ নভেম্বর ২০২১, ১৮: ১৫

বাংলাদেশ-পাকিস্তান দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি

৮ উইকেটে জিতে সিরিজ পাকিস্তানের

১৩: ৩৮, নভেম্বর ২০
default-image

আজও টস জিতে ব্যাটিং বাংলাদেশের 

গতকাল প্রথম টি-টোয়েন্টির মতো আজ দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতেও টস জিতে আগে ব্যাটিং নিয়েছে বাংলাদেশ। প্রথম টি-টোয়েন্টিতে কাল ৪ উইকেটে হেরেছে মাহমুদউল্লাহর দল। বাবর আজমদের হারিয়ে আজ সিরিজে সমতা ফেরাতে পারবে বাংলাদেশ?

১৩: ৪৩, নভেম্বর ২০

বাংলাদেশ দলে কোনো পরিবর্তন নেই 

বাংলাদেশ দল: মাহমুদউল্লাহ, নাঈম শেখ, সাঈফ হাসান, নাজমুল হোসেন, আফিফ হোসেন, নুরুল হাসান, শরীফুল ইসলাম, তাসকিন আহমেদ, মেহেদী হাসান, আমিনুল ইসলাম ও মোস্তাফিজুর রহমান।

১৩: ৪৬, নভেম্বর ২০

পাকিস্তান ফিরিয়েছে শাহিন আফ্রিদিকে, বাদ পড়েছেন হাসান আলী 

গতকাল প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ২২ রানে ৩ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা হয়েছিলেন হাসান আলী। আজ তাঁকে বাদ দিয়েই শাহীন আফ্রিদিকে ফিরিয়েছে পাকিস্তান।

পাকিস্তান দল:

বাবর আজম, মোহাম্মদ রিজওয়ান, ফখর জামান, হায়দার আলী, শোয়েব মালিক, শাদাব খান, খুশদিল শাহ, মোহাম্মদ নওয়াজ, শাহিন শাহ আফ্রিদি, মোহাম্মদ ওয়াসিম জুনিয়র, হারিস রউফ।

১৪: ০১, নভেম্বর ২০

বোলিংয়ে শাহিন আফ্রিদি

বাংলাদেশের হয়ে ওপেন করতে নেমেছেন মোহাম্মদ নাঈম ও সাইফ হাসান। প্রথম ওভারে বোলিং শুরু করেছেন পাকিস্তানের বাঁহাতি পেসার শাহিন আফ্রিদি।

১৪: ০৭, নভেম্বর ২০

প্রথম ওভারেই ফিরলেন সাইফ

নতুন বলে বল ভেতরে ঢোকান শাহিদ আফ্রিদি। সাইফ হাসান তা জেনে পাকিস্তানি পেসারের ইয়র্কার ঠিকমতো সামলাতে পারেননি। নিজের মুখোমুখি হওয়া প্রথম বলেই এলবিডব্লু হয়ে ড্রেসিংরুমে ফিরলেন বাংলাদেশের ওপেনার। প্রথম ওভার শেষে বাংলাদেশ ১ উইকেটে ২ রান তুলেছে। উইকেটে মোহাম্মদ নাঈমের সঙ্গে নাজমুল হোসেন।

নিজের ওভারের পঞ্চম বলে সাইফকে (০) তুলে নেন শাহিন আফ্রিদি।

default-image
১৪: ১৩, নভেম্বর ২০

ক্যাচ শেখালেন নাঈম!

দ্বিতীয় ওভারে পেসার মোহাম্মদ ওয়াসিমকে আক্রমণে আনেন অধিনায়ক বাবর আজম। তাঁর দ্বিতীয় বলে স্লিপে ক্যাচ তুলে বেঁচে যান নাঈম। বল ফিল্ডারের সামনে পড়ে। কিন্তু ওভারের শেষ বলে একইভাবে খেলতে গিয়ে স্লিপে ফখর জামানকে ক্যাচ দেন নাঈম। ৮ বলে ২ রান করে ফিরলেন তিনি।

টানা দুই ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে বিপদে বাংলাদেশ। ২ ওভার শেষে বাংলাদেশ ২ উইকেটে ৫ রান তুলেছে।

default-image
১৪: ২০, নভেম্বর ২০

শাহিন আফ্রিদিকে ছক্কা আফিফের

আফিফ হোসেন চারে নেমে বেশি সময় নেননি। শাহিন আফ্রিদির করা তৃতীয় ওভারের দ্বিতীয় বলেই স্কয়ার লেগের ওপর দিয়ে ছক্কা মারেন এ বাঁহাতি। চতুর্থ বলটি তাঁর ব্যাটে লেগে ফাইন লেগ দিয়ে চার হয়। এ ওভারে ১২ রান দেন আফ্রিদি।

৩ ওভার শেষে বাংলাদেশ ২ উইকেটে ১৭। ৪ বলে ৬ রানে অপরাজিত আফিফ। অন্য প্রান্তে ৪ বলে ৩ রান নিয়ে ব্যাট করছেন নাজমুল।

default-image
১৪: ২৯, নভেম্বর ২০

পঞ্চম ওভার থেকে স্পিনার!

শোয়েব মালিক করছেন পঞ্চম ওভারের বোলিং। অভিজ্ঞ এ ক্রিকেটারকে পাওয়ার প্লে–র মধ্যেই বোলিংয়ে এনেছে পাকিস্তান। আগের ওভারে মোহাম্মদ ওয়াসিমকে চার মেরে আত্মবিশ্বাস কুড়োন আফিফ। এ ওভারে মালিককে চার মেরে রানের গতি বাড়ানোর চেষ্টা করছেন নাজমুল।

৫ ওভার শেষে বাংলাদেশ ২ উইকেটে ৩০।

১৪: ৩৫, নভেম্বর ২০

পাওয়ার প্লে–তে একটু উন্নতি বাংলাদেশের

এই পাকিস্তানের বিপক্ষেই আগের ম্যাচে পাওয়ার প্লে–তে ৩ উইকেটে ২৫ রান তোলে বাংলাদেশ। আজও আগে ব্যাট করতে নেমে পাওয়ার প্লে–তে ২ উইকেট হারিয়ে ৩৬ রান তুলেছে বাংলাদেশ।

এ ওভারে বল করেন হারিস রউফ। তৃতীয় উইকেটে ২৪ বলে ৩১ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়ে লড়ছেন আফিফ ও নাজমুল।

১৪: ৪০, নভেম্বর ২০

শাদাবের প্রথম ওভারে এল ৬ রান

সপ্তম ওভারে লেগ স্পিনার শাদাব খানকে বোলিংয়ে এনেছে পাকিস্তান। তাঁর প্রথম ওভারে ৬ রান নিতে পেরেছেন আফিফ ও নাজমুল। শুধু পঞ্চম বলে কোনো সিঙ্গেল আসেনি, বাকি পাঁচ বলেই সিঙ্গেল এসেছে। ওভারে একটা ওয়াইডও করেছেন শাদাব।

৭ ওভারে বাংলাদেশের রান ২ উইকেটে ৪২।

১৪: ৪৪, নভেম্বর ২০

৯ রানের ওভারে বাংলাদেশ পেরোল ৫০

ওভারের শেষ বলটা স্টাম্পের ওপরে রেখেছিলেন শোয়েব মালিক। কিন্তু ব্যাকফুট স্কয়ার কাটে দুই ফিল্ডারের ফাঁক গলে চার মারলেন নাজমুল। ওভারে এল ৯ রান। শেষ বলের বাউন্ডারিতে বাংলাদেশ রানও ৫০ পেরোল।

বাংলাদেশের রান ৮ ওভার শেষে ২ উইকেটে ৫১।

১৪: ৪৭, নভেম্বর ২০

হঠাৎ কী হলো আফিফের! 

কী দারুণ একটা জুটি গড়ছিলেন আফিফ ও নাজমুল। দুজন এক-দুই করে নিচ্ছিলেন দারুণভাবে, মাঝে মাঝে চার-ছক্কাও ছিল। কিন্তু দারুণ জুটিটা গড়ে ওঠার পথেই অর্থহীন এক শট খেলে আউট আফিফ! শাদাবের বলে রিভার্স সুইপ করতে চেয়েছিলেন, কিন্তু শেষ মুহূর্তে চোখ সরিয়ে নেন বল থেকে। একটু ধীরে আসা বলটা আফিফের ব্যাটের ওপরের দিকের কানায় লেগে ওপরে উঠে যায়। উইকেটকিপার রিজওয়ানের ক্যাচটাকে হয়তো ক্যাচই মনে হয়নি!

২১ বলে ১ চার ১ ছক্কায় ২০ রান করেছেন আফিফ। ক্রিজে নতুন ব্যাটসম্যান অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ।

১৪: ৫০, নভেম্বর ২০

মাহমুদউল্লাহর রিভিউ-ভাগ্যের পর নাজমুলের চার

ওভারের প্রথম বলে আফিফের অদ্ভুত আউটের পর ক্রিজে আসেন মাহমুদউল্লাহ। কিন্তু তৃতীয় বলেই আউট প্রায় হয়েই গিয়েছিলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। তাঁর বিরুদ্ধে শাদাবের এলবিডব্লুর আবেদনে আম্পায়ার আঙুল তুলে দেন, কিন্তু মাহমুদউল্লাহ রিভিউ নেন। ভিডিও রিপ্লেতে দেখায়, বল প্যাডে আঘাত করার সময়ে স্টাম্পের লাইনের বাইরে ছিল। বেঁচে যান মাহমুদউল্লাহ।

পঞ্চম বলে মিডউইকেটে দারুণ শটে চার মারেন নাজমুল। আফিফকে হারানো ওভারে বাংলাদেশ পেল ৬ রান। ৯ ওভার শেষে ৩ উইকেটে ৫৭ রান বাংলাদেশের।

১৪: ৫৫, নভেম্বর ২০

নওয়াজের প্রথম ওভারে ৭ রান

দশম ওভারে মোহাম্মদ নওয়াজকে প্রথম বোলিংয়ে এনেছে পাকিস্তান। বাঁহাতি স্পিনারের দ্বিতীয় বলেই চার মেরেছেন নাজমুল। আগের ওভারে শাদাবের বলে যেভাবে ব্যাক ফুলে পুল করেছিলেন মিডউইকেটে, এই ওভারের চারটিও সেভাবেই এল।

ওভারে শেষ পর্যন্ত এসেছে ৭ রান। ১০ ওভারে বাংলাদেশের রান ৩ উইকেটে ৬৪।

১৪: ৫৮, নভেম্বর ২০
default-image

ইনিংসের অর্ধেকে উন্নতি

গতকাল প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ১০ ওভারে ৪ উইকেটে ৪০ রান করেছিল বাংলাদেশ। আজ দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে তার চেয়ে বেশ ভালোই করেছে বলতে হবে। তবে নবম ওভারে আফিফের ওভারে আউট হওয়াই হয়তো বাংলাদেশকে আফসোসে ভোগাবে।

প্রথম দুই ওভারে দুই ওপেনারকে হারানোর পর নাজমুলকে নিয়ে দারুণ জুটি গড়েছিলেন আফিফ। ৩৭ বলে ৪৬ রানের সেই জুটির সবচেয়ে ভালো লাগা দিকটি ছিল, চার-ছক্কার পাশাপাশি এক-দুই রান নিয়ে পাকিস্তানকে বেশ চাপে রেখেছিলেন দুজন। জুটিতে ডট বল ছিল মাত্র ১২টি।

আফিফ ফিরে গেলেও নাজমুল এখন পর্যন্ত দারুণ খেলছেন। ২৫ বলে ৩৪ রান নিয়ে অপরাজিত। অন্য প্রান্তে নতুন ব্যাটসম্যান মাহমুদউল্লাহ ক্রিজে আসার পর এ পর্যন্ত দুই ওভারে দুটি চার মেরে রানের চাপ কমিয়ে রেখেছেন নাজমুল। দেখা যাক, এই জুটি কতটা কী করতে পারে।

১৫: ০০, নভেম্বর ২০

মাহমুদউল্লাহ সুযোগ দিয়েও বেঁচে গেলেন

শাদাবের করা ওভারের চতুর্থ বলটি মাহমুদউল্লাহর ব্যাটের কানা ছুঁয়ে উইকেটকিপারের হাতে গিয়েছিল, কিন্তু উইকেটকিপার রিজওয়ানের হাতে জমা পড়েনি ক্যাচ। ওভারে তিনটি ডাবল নিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ ও নাজমুল। ৮ রান এসেছে ওভারে।

১১ ওভারে বাংলাদেশের রান ৩ উইকেটে ৭২।

১৫: ০৫, নভেম্বর ২০

অসাধারণ শটে মাহমুদউল্লাহর প্রথম বাউন্ডারি

চোখে লেগে থাকার মতো শট মাহমুদউল্লাহর। নওয়াজের বলে এগিয়ে এসে লং অফে মেরেছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। লং অফে থাকা ফিল্ডার দৌড়ে আসার আগেই বল সীমানার বাইরে।

ওভারে ৬ রান এসেছে। বাংলাদেশের রান ১২ ওভারে ৩ উইকেটে ৭৮। নাজমুল ও মাহমুদউল্লাহর জুটিতে ২৩ বলে এসেছে ২৭ রান।

১৫: ০৯, নভেম্বর ২০

স্পিন বদলে পেস আসতেই সাফল্য পাকিস্তানের

পাওয়ার প্লে-র শেষ ওভারে বোলিং করেছিলেন হারিস রউফ। এরপর টানা ৭ ওভার স্পিনের পর আবার পেস বোলিং নিয়ে এসেছেন পাকিস্তান অধিনায়ক বাবর আজম, নিয়ে এসেছেন সেই রউফকেই। বদলটাতে সাফল্য এল সঙ্গে সঙ্গেই। থার্ডম্যানে ঠেলে দিতে চেয়েছিলেন মাহমুদউল্লাহ, কিন্তু দ্বিধায় পড়ে গিয়েছিলেন শট খেলতে গিয়ে। বল তাঁর ব্যাটে লেগে গেল উইকেটকিপারের হাতে। ১৫ বলে ১২ রান করে ফিরেছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।

ক্রিজে নাজমুলের সঙ্গী নতুন ব্যাটসম্যান নুরুল। এরই মধ্যে এক রান নিয়ে রানের খাতা খুলেছেন তিনি। ওভারে ৩ রান এসেছে। বাংলাদেশের রান ১৩ ওভারে ৪ উইকেটে ৮১।

১৫: ১৩, নভেম্বর ২০

অলস শটে আউট নাজমুল

প্রথম দুই বলে গুগলি দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন শাদাব। প্রথম বলে নাজমুল খেলতে পারেননি ঠিকভাবে, বুঝতেই দেরি হয়েছে। পরের বল হলো ওয়াইড। কিন্তু পরের বল শাদাব করলেন পায়ের ওপর। লেগ সাইডে ঠেলতে চেয়েছিলেন নাজমুল, কিন্তু অলস শটই হলো। বল গেল বোলারের দিকে, ঝাঁপিয়ে পড়ে দারুণ ক্যাচে নাজমুলকে ফেরালেন শাদাব। ৩৪ বলে ৫ চারে ৪০ রান করেছেন নাজমুল।

নতুন ব্যাটসম্যান মেহেদী হাসান। ওভারে এসেছে মাত্র ২ রান। বাংলাদেশ ১৪ ওভারে ৫ উইকেটে ৮৩।

১৫: ১৮, নভেম্বর ২০

১৫ বল, ৭ রান, ২ উইকেট 

জুটি গড়তে গড়তে জুটি বেঁধেই আউট মাহমুদউল্লাহ-নাজমুল। এ দুজনকে ৫ বলের মধ্যে হারিয়ে বাংলাদেশ আবার পড়ে গেছে বিপাকে। ক্রিজে এখন নতুন দুই ব্যাটসম্যান নুরুল হাসান ও মেহেদী হাসান। যে সময়ে বাংলাদেশের হাত খুলে খেলার কথা, সে সময়ে হঠাৎ দুই উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশকে এখন আবার ইনিংস গড়ায় মনোযোগ দিতে হচ্ছে। নুরুল ও মেহেদীর পর বাংলাদেশের স্বীকৃত ব্যাটসম্যানও নেই।

১২তম ওভারের তৃতীয় বলে মাহমুদউল্লাহর বাউন্ডারির পর বাংলাদেশ সর্বশেষ ১৫ বলে পেয়েছে মাত্র ৭ রান, হারিয়েছে মাহমুদউল্লাহ ও নাজমুলের উইকেট। বাংলাদেশের চেয়ে এর চেয়েও হতাশার ব্যাপার, আফিফের পর মাহমুদউল্লাহ ও নাজমুল - বাংলাদেশের সর্বশেষ তিন ব্যাটসম্যানই আউট হয়েছেন শট খেলতে দ্বিধায় ভুগে।

১৫: ২২, নভেম্বর ২০

রানের চাপ বাড়ানো আরেকটি ওভার

আগের দুই ওভারে যথাক্রমে এসেছে ৩ ও ২ রান। ক্রিজে নতুন দুই ব্যাটসম্যান। ১৫তম ওভারে মোহাম্মদ ওয়াসিমকে বোলিংয়ে এনেছে পাকিস্তান। এ ওভারেও এল মাত্র ২ রান। সর্বশেষ ২১ বলে কোনো বাউন্ডারি নেই বাংলাদেশের।

১৫ ওভারে বাংলাদেশের রান ৫ উইকেটে ৮৫।

১৫: ২৭, নভেম্বর ২০

এগিয়ে এসে বোলারকে ক্যাচ প্র্যাকটিস করালেন মেহেদী

রানের চাপটাই শেষ পর্যন্ত কী বিপদ ডেকে আনল? ইনিংসে ওভার বাকি আর ৫টি। আগের তিন ওভারে এসেছে মাত্র ৭ রান। ক্রিজের দুই ব্যাটসম্যানও নতুন। এ অবস্থায় পাল্টা আক্রমণ করতে গেলে যা হয় আর কী!

১৬তম ওভারের তৃতীয় বলে এগিয়ে এসে লং অফে মারতে চেয়েছিলেন মেহেদী। কিন্তু ব্যাটে-বলে হলো না। উল্টো বোলার নওয়াজের হাতে ক্যাচ অনুশীলন করিয়ে ফিরেছেন মেহেদী। ১৭ বলের মধ্যে সর্বশেষ তিন উইকেট হারিয়েছে বাংলাদেশ। নতুন ব্যাটসম্যান লেগ স্পিনার আমিনুল ইসলাম।

ওভারে এসেছে ৪ রান। বাংলাদেশ ১৬ ওভার শেষে ৬ উইকেটে ৮৭ রান। শেষ ২৪ বলে কত রান নিতে পারবে বাংলাদেশ? ১২০ পেরোনোই হয়তো এখন বড় চ্যালেঞ্জ!

১৫: ৩৬, নভেম্বর ২০

শাহিন ফিরলেন বোলিংয়ে, ওভারে এসেছে ২ রান

বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা রানের জন্য খাবি খাচ্ছেন। ইনিংসের শেষ দিকে এসেও বাউন্ডারি তো নয়ই, রানই বের করতে পারছেন না ব্যাটসম্যানরা। এর মধ্যে মূল বোলার শাহিন শাহ আফ্রিদিকে নিয়ে এসেছে পাকিস্তান! ১৭তম ওভারে ২ রান এসেছে।

বাংলাদেশের রান এখন ৬ উইকেটে ৯১।

১৫: ৩৯, নভেম্বর ২০

অবশেষে বাউন্ডারি!

১১.৩ ওভার থেকে ১৭.৫ ওভার - ৩৮ বলে কোনো বাউন্ডারি দেখেনি বাংলাদেশের ইনিংস। সেটিও কিনা টি-টোয়েন্টিতে ইনিংসের শেষ দিকে এসে! নওয়াজের বলে মিডউইকেট আর লং-অনের মাঝ দিয়ে সীমানার বাইরে পাঠিয়েছেন নুরুল হাসান।

ওভারে এর বাইরে প্রতিটি বলেই এক রান করে এসেছে। ওভারে ৯ রান নিয়ে বাংলাদেশের ইনিংসে ১০০ রানও হয়ে গেছে। ১৮ ওভারে বাংলাদেশের রান ৬ উইকেটে ১০০।

১৫: ৪৪, নভেম্বর ২০

বাউন্ডারি-খরা কাটতে না কাটতেই আউট নুরুল

আগের ওভারের পঞ্চম বলে নওয়াজকে চার মেরে বাংলাদেশ ইনিংসের ৩৮ বলের বাউন্ডারি-খরা কাটিয়েছেন, কিন্তু পরের ওভারে শাহিন শাহ আফ্রিদির সামনে পড়তেই আউট নুরুল! চতুর্থ স্টাম্পে ফুল্গ লেংথের বলে পিছু হটে শট খেলতে চেয়েছিলেন নুরুল, কিন্তু ব্যাটের কানায় লেগে বল উইকেটকিপারের হাতে।

১৩ বলে ১১ রান করেছেন নুরুল। ক্রিজে বাংলাদেশের দুই ব্যাটসম্যান এখন লেগ স্পিনার আমিনুল ও পেসার তাসকিন। ১০ বলে ৪ রান করেছেন আমিনুল, তাসকিন মাত্রই এসেছেন ক্রিজে।

১৫: ৪৭, নভেম্বর ২০

শেষ ৬ বলে কত রান করতে পারবে বাংলাদেশ?

শাহিনের করা ১৯তম ওভারে এসেছে ৪ রান। ১৯ ওভারে ৭ উইকেটে ১০৪ রান বাংলাদেশের। ক্রিজে দুই ব্যাটসম্যান তাসকিন ও আমিনুলকে নিয়ে শেষ ওভারে কত রান করতে পারবে বাংলাদেশ?

১৫: ৫৩, নভেম্বর ২০

শেষ ওভারে ‘বাইনারি’ রান

০, ১, ১, ০, ১, ১ - যেন বাইনারি কোনো সংখ্যা! হারিস রউফের করা শেষ ওভারে এ-ই হলো বাংলাদেশের সংগ্রহ। ওভারে ৪ রান নিয়ে বাংলাদেশ ইনিংস শেষ করেছে ৭ উইকেটে ১০৮ রান নিয়ে। অলআউট হয়নি, এমন ইনিংসে এটা বাংলাদেশের তৃতীয় সর্বনিম্ন রান। আগের দুবারই হেরেছিল বাংলাদেশ, এর একটি গত আগস্টে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজে। অন্যটি ২০১১ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে।

পাকিস্তানকে সিরিজ জিততে করতে হবে মাত্র ১০৯ রান।

১৬: ০৪, নভেম্বর ২০

কালকের শুরুটাই আজকের শেষ

প্রথম টি-টোয়েন্টিতে গতকাল প্রথম দশ ওভারে ৪ উইকেটে ৪৪ রান করেছিল। সেটিই ‘কপি’ করে যেন আজ শেষ দশ ওভারে ‘পেস্ট’ করল বাংলাদেশ। আজ শেষ দশ ওভারে এসেছে ৪৪ রান, বাংলাদেশ উইকেট হারিয়েছে ৪টিই।

অথচ ১০ ওভারে ৩ উইকেটে ৬৪ রান করার পর বাংলাদেশ আজ অন্তত ১৪০-১৫০ রানের আশাই করছিল। তার আগের ওভারেই, অর্থাৎ নবম ওভারেই আফিফ (২১ বলে ২০ রান) আউট হওয়ায় নাজমুলের সঙ্গে আফিফের দারুণ জুটিটা ভেঙেছিল। দ্বিতীয় ওভারে ৫ রানের মধ্যে দুই ওপেনারকে হারানোর পর আফিফ-নাজমুল মিলে তৃতীয় উইকেটে ৩৭ বলে ৪৬ রানের জুটি গড়েছিলেন। জুটিতে চারটি চার ও ১ ছক্কার পাশাপাশি দেখার মতো ব্যাপার ছিল, দুজন সেভাবে ডট বলই দিচ্ছিলেন না। কিন্তু সেই বাংলাদেশই ইনিংস শেষে ডট বল দিয়েছে ৫৭টি!

সব ভেস্তে গেছে ১৩তম ওভারের চতুর্থ বলে মাহমুদউল্লাহ আউট হওয়ার পাঁচ বল পর নাজমুলও ফিরে যাওয়ায়। আফিফের পর চতুর্থ উইকেটে দুজন ২৭ বলে ২৮ রানের জুটি গড়েছিলেন। কিন্তু দ্রুত এই দুজন ফেরার পর বাংলাদেশ আর রানই পায়নি সেভাবে। ১৪তম ওভারের দ্বিতীয় বলে ইনিংসের সর্বোচ্চ ৪০ রান করা নাজমুল ফেরার পর ইনিংসের শেষ ৪০ বলে মাত্র একটি চার পেয়েছে বাংলাদেশ।

১৬: ০৬, নভেম্বর ২০

চার মেরে শুরু পাকিস্তানের

লক্ষ্য মাত্র ১০৯ রানের। শুরুতেই স্পিন নিয়ে এল বাংলাদেশ। কিন্তু মেহেদী হাসানের প্রথম বলটাই হলো যেকোনো ব্যাটসম্যানকে বাউন্ডারির লোভ দেখানো ফুলটস। মোহাম্মদ রিজওয়ান লোভ সংবরণ করার দরকারই পড়েনি। সুইপ করে চার মেরেছেন তিনি। প্রথম ওভারে এরপর আর ১ রান এসেছে।

১ ওভার শেষে পাকিস্তানের রান বিনা উইকেটে ৫।

১৬: ১১, নভেম্বর ২০

জয় থেকে আর ১০০ রান দূরে পাকিস্তান

দ্বিতীয় ওভারে পাকিস্তান পেল ৪ রান। তাসকিনের করা ওভারের তৃতীয় বলে দারুণ ফরওয়ার্ড ডিফেন্স করেছিলেন রিজওয়ান, কিন্তু বল ব্যাটে ঠিকমতো না লেগেও বাউন্ডারির বাইরে।

দুই ওভারে বিনা উইকেটে ৯ রান হয়ে গেছে পাকিস্তানের। ৯ রানই রিজওয়ানের, বাবর এখন পর্যন্ত বলই খেলতে পেরেছেন ৩টি। জয়ের জন্য তাদের দরকার আর ঠিক ১০০ রান। ওভার বাকি ১৮টি, উইকেট ১০টিই হাতে।

১৬: ১৪, নভেম্বর ২০

মোস্তাফিজ ফেরালেন বাবরকে

তৃতীয় ওভারে বোলিংয়ে এসেছেন মোস্তাফিজ। তৃতীয় ওভারেই সাফল্য, মোস্তাফিজের বলে ব্যাট চালাতে গিয়েছিলেন বাবর। কিন্তু বল তাঁর ব্যাটের ভেতরের দিকে লেগে উল্টো স্টাম্পেই আঘাত হানল। গতকাল প্রথম টি-টোয়েন্টিতে তাসকিনের বলেও প্লেড-অন হয়েছিলেন বাবর। ৫ বলে ১ রান করে ফিরেছেন পাকিস্তান অধিনায়ক।

ক্রিজে নতুন ব্যাটসম্যান ফখর জামান। প্রথম দুই বলেই মোস্তাফিজের বলে পরাস্ত হয়েছেন তিনি।

ওভারে ৩ রান এসেছে। পাকিস্তানের রান ৩ ওভারে ১ উইকেটে ১২।

১৬: ২৩, নভেম্বর ২০

তাসকিনের ওভারে এল ৩ রান

প্রথম বলে রিজওয়ান পরাস্ত হয়েছেন, চতুর্থ বলে ফখরের বাতাসে চালানো ব্যাটের কোনা ছুঁতে ছুঁতেও শুধুই বাতাস লাগিয়ে বল চলে গেল উইকেটকিপারের হাতে। ওভারজুড়ে গতির খেল দেখিয়েছেন তাসকিন। তবে উইকেট আসেনি।

৩ রান এসেছে ওভারে। পাকিস্তানের রান ৪ ওভারে ১ উইকেটে ১৫।

১৬: ৩১, নভেম্বর ২০

রিভিউ হারানোর পর মোস্তাফিজের শেষ বলে ছক্কা

পঞ্চম বলে রিজওয়ানের বিরুদ্ধে এলবিডব্লুর আবেদন করেছিলেন মোস্তাফিজ। আম্পায়ার আউট না দেওয়ার পর রিভিউ নেয় বাংলাদেশ। কিন্তু বল স্টাম্পের লাইনের বাইরে পড়ায় রিভিউ বাতিল। ওই বলে লেগ বাই ১ রান নেওয়ায় স্ট্রাইকে আসেন ফখর জামান। ওভারের শেষ বলে তিনি এগিয়ে এসে অফসাইডে মারেন ছক্কা।

৯ রান এসেছে ওভারে। ৫ ওভারে ১ উইকেটে ২৪ রান পাকিস্তানের।

১৬: ৩৫, নভেম্বর ২০

পাওয়ার প্লে শেষে পাকিস্তান ২৭/১

ষষ্ঠ ওভারে বোলিংয়ে এলেন শরীফুল। তাঁর ওভারে এল ৩ রান। পাওয়ার প্লে-র ৬ ওভার শেষে পাকিস্তানের রান ১ উইকেটে ২৭। বাংলাদেশ পাওয়ার প্লে-তে করেছিল ২ উইকেটে ৩৬।

১৬: ৩৯, নভেম্বর ২০

মেহেদীর ওভারে এসেছে ৫ রান

পাওয়ার প্লে শেষে আক্রমণে আবার স্পিন এনেছে বাংলাদেশ। ইনিংসের প্রথম ওভারে ৫ রান দেওয়া মেহেদী হাসান এসেছেন সপ্তম ওভারে, এই ওভারেও দিয়েছেন ৫ রান। ৭ ওভারে পাকিস্তানের রান ১ উইকেটে ৩২।

১৬: ৪৩, নভেম্বর ২০

এবার অষ্টম ওভারে বোলিংয়ে আমিনুল

আগের দিন পাকিস্তানের হয়ে ক্রিজে দুই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান ছিলেন বলে লেগ স্পিনার আমিনুলকে বোলিংয়ে আনেননি বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। শেষ পর্যন্ত বোলিং দিয়েছেন শেষ ওভারে, যখন পাকিস্তানের জয়ের জন্য আর ২ রান দরকার ছিল।

তবে আজ ডানহাতি-বাঁ হাতি সমন্বয় দেখেই কি না, অষ্টম ওভারেই আমিনুলকে বোলিংয়ে এনেছেন মাহমুদউল্লাহ। নিজের প্রথম ওভারে ৪ রান দিয়েছেন আমিনুল, পাকিস্তানের রান ৮ ওভারে ১ উইকেটে ৩৬।

১৬: ৪৭, নভেম্বর ২০

চার ওভারে বাউন্ডারি পায়নি পাকিস্তান

পঞ্চম ওভারের শেষ বলে মোস্তাফিজকে ছক্কা মেরেছিলেন ফখর, এরপর চার ওভারে কোনো বাউন্ডারি পায়নি পাকিস্তান। মেহেদীর করা নবম ওভারে এসেছে ৫ রান, পাকিস্তানের রান ১ উইকেটে ৪১।

১৬: ৫১, নভেম্বর ২০

দশম ওভারে এসে ৫০ পেরোল পাকিস্তান

খুব একটা ভালো বোলিং করতে পারেননি আমিনুল। দ্বিতীয় বলে তাঁর ফুলটসে চার মেরেছেন রিজওয়ান। ওভারের শেষ বলটি ছাড়া বাকি সব বলেই রান এসেছে। সব মিলিয়ে ৯ রান এসেছে ওভারে। পঞ্চম বলে এক রান নিয়ে পাকিস্তানের ৫০ রান পূর্ণ করলেন রিজওয়ান ও ফখর।

১০ ওভার শেষে পাকিস্তানের রান ১ উইকেটে ৫০। ইনিংসের বাকি ১০ ওভারে করতে হবে ৫৯ রান। হাতে ৯ উইকেটই আছে।

১৬: ৫৪, নভেম্বর ২০

গতি বাড়াচ্ছে পাকিস্তান

বাউন্ডারির পাশাপাশি এক-দুই করে রানের গতি বাড়াচ্ছে পাকিস্তান। মেহেদীর করা ওভারের প্রথম চার বলে চারটি সিঙ্গেল এসেছে, পঞ্চম বল ডট, শেষ বলে সুইপ করে চার মেরেছেন ফখর।

১১ ওভার শেষে পাকিস্তানের রান ১ উইকেটে ৫৮। গত দুই ওভারে এসেছে ১৭ রান।

১৬: ৫৯, নভেম্বর ২০

ক্যাচ মিসের পর দুই চার

এত সহজ ক্যাচ কীভাবে হাতছাড়া করলেন সাঈফ! ইনিংসের তৃতীয় বলে আমিনুলকে সুইপ করেছিলেন ফখর, কিন্তু মিডউইকেটে ক্যাচ ওঠে। কিন্তু সহজ ক্যাচটা সাঈফের হাত ফসকে তো বেরোলই, চারও হয়ে গেল। এই চারে জুটিতে ৫০ রানও হয়ে গেছে ফখর-রিজওয়ানের। দুই বল পর এগিয়ে এসে চার মেরেছেন রিজওয়ানও।

ওভারে ১৩ রান এসেছে। পাকিস্তানের রান ১২ ওভারে ১ উইকেটে ৭১।

১৭: ০৬, নভেম্বর ২০

আর ৪২ বলে পাকিস্তানের দরকার ৩৪ রান

তাসকিন ফিরেছেন বোলিংয়ে। তাঁর ওভারে এসেছে ৪ রান। ১৩ ওভার শেষে পাকিস্তানের রান ১ উইকেটে ৭৫। ফখর ও রিজওয়ান দুজনই ৩৫ রানে অপরাজিত।

১৭: ১১, নভেম্বর ২০

মোস্তাফিজ এক বল করেই মাঠ ছাড়লেন

১৪তম ওভারে প্রথম বলটা করেই মাঠ ছাড়তে হয়েছে মোস্তাফিজকে। ওভারের বাকি ৫ বল করেছেন শরীফুল। খুব একটা ভালো করতে পারেননি। তাঁর তৃতীয় ও ওভারের চতুর্থ বলে ছক্কা মেরেছেন ফখর।

ওভারে ৮ রান এসেছে। পাকিস্তানের রান ১৪ ওভারে ১ উইকেটে ৮৩।

১৭: ১৭, নভেম্বর ২০

ফখরের ফিফটি

তাসকিনের ওভারের প্রথম বলে ডিপ মিডউইকেটে বিশাল এক ছক্কা মেরেছেন ফখর। পরের বলে এল দুই রান, তাতে ফখরের অর্ধশতকও হয়ে গেল। ৪০ বলে ফিফটিতে পৌঁছালেন ফখর, ছক্কা তিনটি, চার দুটি।

ওভারে ১২ রান এসেছে। ১৫ ওভারে ১ উইকেটে ৯৫ রান পাকিস্তানের। জয় থেকে আর মাত্র ১৪ রান দূরে তারা।

১৭: ২২, নভেম্বর ২০

রিজওয়ানকে ফেরাতে পারল বাংলাদেশ, তবে বড় দেরিতে

ফখর জামান ২৬ রানে থাকার সময় জীবন পেয়েছিলেন আমিনুলের হাতে তাঁর ক্যাচ হাতছাড়া হওয়ায়। সেই আমিনুলের করা ১৬তম ওভারের প্রথম বলেই আবার ক্যাচ হাতছাড়া হলো বাংলাদেশ দলের। এবার ব্যাটসম্যান রিজওয়ান, আমিনুলের বলে সুইপ করতে গিয়ে শর্ট ফাইন লেগে ক্যাচ দিয়েছিলেন, কিন্তু তাসকিন ক্যাচ ধরতে পারলেন না। তবে জীবন পাওয়ার দুই বল পরই পয়েন্টে ক্যাচ দিয়ে ফিরেছেন রিজওয়ান। ৪৬ বলে ৪ চারে ৩৯ রান করেছেন তিনি।

তবে উইকেটটা বড় দেরিতেই পেল বাংলাদেশ। ওভারে ৪ রান এসেছে। ১৬ ওভারে ২ উইকেটে ৯৯ রান পাকিস্তানের। আর জয়ের জন্য তাদের দরকার ১০ রান। হাতে ২৪ বল।

নতুন ব্যাটসম্যান হায়দার আলী।

১৭: ২৮, নভেম্বর ২০

নাজমুলের ওভারে ৩ রান

১৭তম ওভারে নাজমুল হোসেনকে বোলিংয়ে এনেছে বাংলাদেশ। ৩ রান এসেছে ওভারে। ১৭ ওভারে পাকিস্তানের রান ২ উইকেটে ১০২। আর ৭ রান দরকার পাকিস্তানের।

১৭: ৩০, নভেম্বর ২০

আফিফের ওভার শেষে সমতায় পাকিস্তান

১৮তম ওভারে আফিফকে বোলিংয়ে এনেছেন মাহমুদউল্লাহ। ওভারের দ্বিতীয় বলে চার মেরেছেন হায়দার আলী। ৬ রান এসেছে ওভারে। বাংলাদেশের সমান ১০৮ রান হয়ে গেছে পাকিস্তানের।

১৭: ৩৩, নভেম্বর ২০

১১ বল হাতে রেখেই জিতল পাকিস্তান

নতুন বোলার আনার ধারায় ১৯তম ওভারে সাঈফকে এনেছেন মাহমুদউল্লাহ। তাঁর প্রথম বলেই এক রান নিয়ে পাকিস্তানকে ৮ উইকেটে জিতিয়ে দিলেন ফখর জামান। শেষ পর্যন্ত ৫১ বলে ৫৭ রান করে অপরাজিত থাকলেন তিনি। ১১ বল হাতে রেখে ম্যাচটা জিতেছে পাকিস্তান। তিন টি-টোয়েন্টির সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচ জিতে সিরিজ জিতে নিয়েছে পাকিস্তান।