তরুণ নেতাদের বিশ্ব তালিকায় স্থান পেলেন মাশরাফি বিন মুর্তজা
তরুণ নেতাদের বিশ্ব তালিকায় স্থান পেলেন মাশরাফি বিন মুর্তজাছবি: প্রথম আলো

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সফলতম অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা মাঠের বাইরেও পেলেন নেতৃত্বের স্বীকৃতি। ওয়ার্ল্ড ইকনমিক ফোরাম ২০২১ সালে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য সারা বিশ্ব থেকে বেছে নিয়েছে ১১২ জন ‘ইয়াং গ্লোবাল লিডার্স’। দক্ষিণ এশিয়া থেকে নির্বাচিত ১০ জনের একজন মাশরাফি। নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফি নিজ এলাকায় উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে ভূমিকা রাখায় এই স্বীকৃতি পেলেন।

প্রতিবছর রাজনীতি, বাণিজ্য, শিক্ষা, গণমাধ্যম এবং কলায় বিশেষ অর্জন আর অবদান রাখা তরুণ ব্যক্তিত্বদের এই সম্মাননা দেয় ওয়ার্ল্ড ইকনমিক ফোরাম। এই তালিকায় থাকতে হলে বয়স হতে হবে ৩৮–এর কম। ৩৭ বছর বয়সে এই স্বীকৃতি পেলেন বাংলাদেশের সাবেক ওয়ানডে অধিনায়ক।

তবে বাংলাদেশে মাশরাফিই প্রথম এই স্বীকৃতি পাননি। ২০১৬ সালে ইয়াং গ্লোবাল লিডার হিসেবে দক্ষিণ এশিয়া থেকে নির্বাচিত হয়েছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

বিজ্ঞাপন

মাশরাফি ‘নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশন’ নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার। তাঁর এই স্বীকৃতির পেছনে এই প্রতিষ্ঠানের আছে বড় অবদান। ‘নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশন’ নিয়ে ইয়াং গ্লোবাল লিডার্স লিখেছে, ‘মাশরাফি বিন মুর্তজা, বাংলাদেশের একজন ক্রিকেটার ও বাংলাদেশের ওয়ানডে দলের সাবেক অধিনায়ক। টি-টোয়েন্টি দলেরও অধিনায়ক ছিলেন। মাশরাফি তিনটি বড় আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টের ফাইনালে দেশকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। ক্রিকেটের বাইরে তিনি বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে নিজ শহর নড়াইলের মানুষের দারিদ্র্যতা দূর করতে রাখছেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। ৬টি গুরুত্বপূর্ণ লক্ষ্য অর্জনের ভাবনা থেকে তিনি নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনও প্রতিষ্ঠা করেন। লক্ষ্যগুলো হলো—নাগরিকদের জন্য আধুনিক সুযোগ–সুবিধা ও বিশেষ শিক্ষাব্যবস্থা নিশ্চিত করা, যেটি হবে মানবিক শিক্ষাব্যবস্থা, তরুণদের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করা, খেলোয়াড় তৈরি করা, সাংস্কৃতিক কার্যক্রম বৃদ্ধি করা, চিত্রা নদীতে পর্যটন কেন্দ্র স্থাপন এবং নড়াইলকে তথ্য, প্রযুক্তি ও পরিবেশবান্ধব শহরে রূপান্তর করা।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন