বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সম্ভাবনাময় ব্যাটসম্যান হিসেবেই জাতীয় দলে এসেছিলেন। ২০১৭ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট অভিষেকটা হয়েছিল হঠাৎ করেই। অভিষেক ইনিংসে সম্ভাবনা দেখালেও এরপর কেন যেন নিজের মতো করে খেলতেই পারছিলেন না। সমালোচনা হচ্ছিল ব্যর্থতার পরেও নাজমুলকে তিন নম্বরে খেলিয়ে যাওয়া। কিন্তু টিম ম্যানেজমেন্টের আস্থা ছিল তাঁর প্রতি। আজ পাল্লেকেলেতে সেই আস্থারই প্রতিদান দিয়েছেন তিনি।

অধিনায়ক মুমিনুল ১৫০ বলে ৬৪ রান করে অপরাজিত। তিনি জুটির গোটা সময়টাতেই নাজমুলকে সঙ্গ দিয়ে গেছেন দারুণভাবে। তাঁর কাজটা আসলে অনেক বেশি সহজ করে দিয়েছিল নাজমুলের ব্যাটিংই।

টেস্ট ক্রিকেটে দিন শেষে এমন স্বস্তির দেখা খুব কমই পেয়েছে বাংলাদেশ। তামিম আউট হয়ে যাওয়ার পর যে হতাশাটা, সেটি দিন শেষে দারুণভাবে কাটিয়ে দিয়েছেন নাজমুল-মুমিনুল। এ মুহূর্তে স্কোরবোর্ডের যে চেহারা, তাতে বাংলাদেশ এই টেস্ট জয়ের জন্য বড় একটা সংগ্রহে চোখ রাখতেই পারে। এখনো পর্যন্ত পাল্লেকেলেতে উইকেট ব্যাটসম্যানদের পক্ষে। এই উইকেটে স্থিতধী ব্যাটিংয়েই ফল মিলেছে বাংলাদেশের। কাল দ্বিতীয় দিনেও পাল্লেকেলের ব্যাটিং সহায়ক পরিবেশের সুযোগটা কোনোভাবেই ছাড়তে চাইবেন না বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানরা।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন