বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সৌরভ গাঙ্গুলী বিসিসিআই সভাপতি, রাহুল দ্রাবিড় জাতীয় দলের কোচ, লক্ষ্মণের দায়িত্ব পড়েছে ছোটদের গড়ে তোলার। ‘ভেরি ভেরি স্পেশাল’ (ভিভিএস) এখন ভারতের জাতীয় ক্রিকেট একাডেমির পরিচালক। বাকি রইলেন টেন্ডুলকার ও শেবাগ।

‘বীরু’ কে নিয়ে এখনো সেভাবে কিছু শোনা যায়নি। তবে টেন্ডুলকারকে নিয়ে এতক্ষণে ফিসফাস শুরু হয়ে যাওয়ার কথা। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রান এবং শতকের রেকর্ডের মালিককে বোর্ডে নিয়ে আসার ইঙ্গিত দিয়েছেন সৌরভ গাঙ্গুলী।

default-image

ভারতের সংবাদকর্মী বোরিয়া মজুমদারের সঙ্গে ‘ব্যাকস্টেজ উইথ বোরিয়া’ অনুষ্ঠানে এমন কথাই বলেন বিসিসিআই সভাপতি এবং টেন্ডুলকারের একসময়ের এই ওপেনিং সতীর্থ। সৌরভ মনে করেন, টেন্ডুলকারকে জাতীয় দলের সঙ্গে রাখলে ভারতীয় ক্রিকেটের জন্য এর চেয়ে বড় খবর আর কিছু হতে পারে না। তবে ‘স্বার্থের দ্বন্দ্ব’ না ঘটিয়েই কাজটি করতে চান তিনি।

সৌরভ বলেন, ‘শচীন একটু আলাদা। সে এসবে নিজেকে জড়াতে চায় না। আমি নিশ্চিত, ভারতীয় ক্রিকেটে শচীনের ফেরার চেয়ে বড় খবর হতে পারে না। কিন্তু কীভাবে, কোন দায়িত্বে ফেরানো যায়, তা বের করতে হবে। কারণ, চারপাশে এখন অনেক দ্বন্দ্ব। ঠিক কিংবা ভুল, যা–ই করুন না কেন “দ্বন্দ্ব” থেকে মুক্তি নেই, এর মধ্যে কিছু বিষয় তো আমার কাছে সত্যিই অবাস্তব লাগে। তাই খেলায় সেরা প্রতিভাকে রাখতে হলে সেরা পথটাই বের করতে হবে। ভারতীয় ক্রিকেটে ফিরতে শচীনও একপর্যায়ে সে পথটা খুঁজে পাবে বলে আমি মনে করি।’

default-image

দ্রাবিড় জাতীয় দলের কোচের দায়িত্ব নেওয়ার আগে জাতীয় ক্রিকেট একাডেমি সামলেছেন। তার আগে ছিলেন ভারত অনূর্ধ্ব-১৯ ও ‘এ’ দলের কোচ।

গত অক্টোবরে রবি শাস্ত্রীর জায়গায় জাতীয় দলের কোচের দায়িত্ব নেন দ্রাবিড়। তাঁর অধীন এরই মধ্যে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি ও টেস্ট সিরিজ জিতেছে ভারত।

এদিকে লক্ষ্মণ ১৩ ডিসেম্বর থেকে দ্রাবিড়ের পুরোনো পদ অর্থাৎ জাতীয় ক্রিকেট একাডেমিতে পরিচালক হিসেবে যাত্রা শুরু করেছেন। এর আগে আইপিএলে সানরাইজার্স হায়দরাবাদে ‘উপদেষ্টা’ এবং ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অব বেঙ্গলে (সিএবি) ব্যাটিং পরামর্শকের দায়িত্বে ছিলেন লক্ষ্মণ।

টেন্ডুলকার এখনো কোথাও কোচের দায়িত্ব পালন করেননি। ২০২১ আইপিএলে আরব আমিরাত পর্বে মুম্বাই ইন্ডিয়ানসে ‘উপদেষ্টা’–এর দায়িত্বে ছিলেন টেন্ডুলকার।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন