বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

কীর্তিপুরে টস জিতে আজ আগে ব্যাটিংয়ে নামেন তামিমরা। প্রদীপ ঐরির সঙ্গে ওপেন করতে নেমে তামিম ক্রিজে ছিলেন ইনিংসের ২৫ বল পর্যন্ত। দ্বিতীয় ওভারে একটা চার মারার পর চতুর্থ ওভারের প্রথম বলে জনক প্রকাশের বলে ক্যাচ তুলে ফিরে যান তিনি। ঐরির সঙ্গে তামিমের ওপেনিং জুটিতে ওঠে ২৬ রান। এ নিয়ে এভারেস্ট প্রিমিয়ার লিগে চার ম্যাচে তামিমের রান—১২, ১৪, ৪০ ও ৯।

default-image

দ্বিতীয় উইকেটে উপুল থারাঙ্গার সঙ্গে ঐরি যোগ করেন আরও ৪৭ রান। নিজে ২৭ বলে ৩৯ রান করে ফেরেন ঐরি। থারাঙ্গা ৩৩ বলে ৩৫ রান করলেও মাঝে ঝড় তোলেন কুশাল মাল্লা। ২০ বলে ৪ ছয়ে ৩২ রান করেন মাল্লা। এরপর শেষ দিকে মাল্লার ঝড়কেও ছাপিয়ে যান শারদ ভেসাকার। ভৈরহাওয়া অধিনায়ক ৪৯ রান করেন মাত্র ২০ বল খেলে। ইনিংসে ৭ চারের সঙ্গে ৩টি ছয় মেরেছেন এ ডানহাতি ব্যাটসম্যান। ভেসাকারের সঙ্গে আরিফ শেখের ৮ বলে ১৫ রানের ক্যামিওতে ১৮৮ রান পর্যন্ত যায় ভৈরহাওয়া। শেষ ৭ ওভারেই তারা তুলেছে ৯৩ রান।

default-image

রান তাড়ায় প্রথম ভাগে ভৈরহাওয়ার চেয়ে বেশ এগিয়েই ছিল কাঠমান্ডু। প্রথম ১৩ ওভারে ভৈরহাওয়ার ৯৫ রানের বিপরীতে তারা তোলে ৩ উইকেট হারিয়ে ১১০ রান। তবে শেষ দিকে ভেসাকারের মতো করে ঝড় তুলতে পারেননি কেউ।

ওপেনিংয়ে নামা শ্রীলঙ্কার আশান প্রিয়ঞ্জন ৪৮ বলে করেন ৬৮ রান। এরপর পাঁচে নামা জনক প্রকাশ ১৪ বলে ২৮ রানের ইনিংস খেললেও তাঁকে সেভাবে সহায়তা করতে পারেননি কেউ। শেষ দিকে দিনেশ অধিকারীর ৯ বলে ১৫ রানের ক্যামিও-ও যথেষ্ট হয়নি তাদের জন্য। ২০ ওভার শেষে ১৭২ রানেই থেমেছে কাঠমান্ডু।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন