বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

কিউইরা সফর বাতিলের কারণ হিসেবে দেখিয়েছিল নিরাপত্তা নিয়ে হুমকি থাকাকে। কিন্তু সেদিন কী এমন হয়েছিল বা সফর বাতিলের সেই সিদ্ধান্তের পর নিউজিল্যান্ডের খেলোয়াড়দের মনের অবস্থাই বা কেমন হয়েছিল—এসব নিয়ে সম্প্রতি কথা বলেছেন পাকিস্তান সফরে নিউজিল্যান্ড দলের অধিনায়ক টম ল্যাথাম। সফর বাতিলের সিদ্ধান্ত হওয়ার ২৪ ঘণ্টা পর পাকিস্তান ছেড়েছিল নিউজিল্যান্ড দল। ওই ২৪ ঘণ্টা নিউজিল্যান্ড দলের খেলোয়াড়দের কেমন কেটেছে, তা নিয়েও কথা বলেছেন ল্যাথাম।

দুবাই হয়ে গতকালই দেশে পৌঁছেছেন নিউজিল্যান্ডের খেলোয়াড়েরা। সেখানে তাঁরা ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকবেন। এর মধ্যে ল্যাথাম নিউজিল্যান্ডের সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছেন সেই ২৪ ঘণ্টার অভিজ্ঞতা। নিউজিল্যান্ডের পাকিস্তান সফরের অধিনায়ক বলেছেন, ‘সাধারণ একটি ম্যাচ দিবসের মতোই সবকিছু এগোচ্ছিল। আমরা দুপুর সাড়ে ১২টায় হোটেল ছেড়ে মাঠে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম। এর মধ্যেই আমি হোয়াটসঅ্যাপে একটি বার্তা পেলাম যে ১২টায় জরুরি সভা। আর সেই সভায় গিয়ে জানতে পারলাম যে আমরা দেশে ফিরে যাচ্ছি।’

default-image

পাকিস্তানে এরপর ২৪ ঘণ্টা থাকার অভিজ্ঞতা বর্ণনা করতে গিয়ে ল্যাথাম বলেছেন, ‘ওই সিদ্ধান্তের পরের ২৪ ঘণ্টা একটু অন্য রকমই ছিল। কিন্তু এটা ঠিক যে এনজেডসি আর প্লেয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন আর পাকিস্তানে মাঠে যারা ছিলেন সবাই খেলোয়াড়দের নিরাপত্তার বিষয়টিকেই সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন। সবাই মিলে যে আমাদের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে দুবাই পাঠানোর ব্যবস্থা করেছে, সেটা ছিল অসাধারণ এক ব্যাপার। এর জন্য আমরা সবাই খুব কৃতজ্ঞ।’

default-image

পাকিস্তান থেকে দুবাই যাওয়ার পর নাকি হাঁপ ছেড়ে বেঁচেছেন নিউজিল্যান্ডের খেলোয়াড়েরা। ল্যাথাম বলেছেন, ‘সফর বাতিলের সিদ্ধান্ত হওয়ার ২৪ ঘণ্টা পর আমরা দুবাই পৌঁছেছি। আমরা সবাই যে একটি দল হিসেবে এমন সময়ে কিছু সময় একসঙ্গে কাটাতে পেরেছি, তা ভালো একটি ব্যাপার ছিল।’

ল্যাথাম এরপর যোগ করেন, ‘দেশে ফিরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত হওয়ার পর আমাদের ২৪টি অস্থির ঘণ্টা কেটেছে। ছেলেদের কাছে এ সময়টা একটু আলাদা রকমেরই ছিল। কিন্তু আমরা একটি দল হিসেবে ওই ২৪ ঘণ্টা খুব কাছাকাছি থেকেছি। শেষমেশ সেখান থেকে দুবাইয়ে পৌঁছাতে পেরে সবাই স্বস্তি পেয়েছে।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন