বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এ নিয়ে টেস্ট সিরিজ খেলতে পঞ্চমবারের মতো বাংলাদেশে এল শ্রীলঙ্কা। সর্বশেষ ২০১৮ সালে বাংলাদেশে এসেছিল দলটি। সব মিলিয়ে বাংলাদেশের মাটিতে আটটি টেস্ট খেলে শ্রীলঙ্কা হারেনি একটিতেও, ড্র হয়েছে দুটি। ম্যাথুস অবশ্য অতীত রেকর্ডের দিকে না তাকিয়ে নিজেদের সেরা পারফরম্যান্স দেওয়ার কথাই বলেছেন।

default-image

শ্রীলঙ্কা ছাড়ার আগে ম্যাথুস বলেছেন, ‘বাংলাদেশ খুবই শক্তিশালী দল। যদি ওদের হালকাভাবে নেন, তাহলে সেটা বোকামি হবে। ওদের হারাতে হলে আমাদের সেরা খেলাটাই খেলতে হবে। আমাদের খুব ভালো পারফরম্যান্স করতে হবে।’

এ সফরে বেশ কয়েকটি পরিবর্তন নিয়ে এসেছে শ্রীলঙ্কা। লঙ্কানদের ব্যাটিং লাইনআপ বেশ অভিজ্ঞ হলেও বোলিং আক্রমণ বেশ অনভিজ্ঞ। তবে ম্যাথুসের আশা, বাংলাদেশে তারা ভালো করতে পারবেন, ‘আমাদের সেই স্কিল ও মেধা আছে, এখন ভালো পরিকল্পনা করে সেখানে গিয়ে সেসবের বাস্তবায়ন করতে হবে। আমি আশা করছি, সেটা আমরা করতেও পারব। আমাদের দলটা ভালো। আশা করি, আমরা বাংলাদেশকে ঘরের মাঠে হারাতে পারব।’

‘ওরা ঘরের মাঠে অনেক ভালো দল। নিজেদের মাঠে ওরা বড় বড় দলকে হারিয়েছে। আগেও যেমন বলেছি, নিজেদের সেরা খেলাটাই খেলতে হবে ওখানে গিয়ে।
অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস, অলরাউন্ডার, শ্রীলঙ্কা

সাম্প্রতিক সময়ে দেশের মাটিতে বাংলাদেশের পারফরম্যান্স অবশ্য সুবিধার নয় । দেশের মাটিতে সর্বশেষ চারটি টেস্টেই হেরেছে বাংলাদেশ—ওয়েস্ট ইন্ডিজের পর পাকিস্তানের কাছেও দুই ম্যাচ সিরিজে ধবলধোলাই। ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দেশের মাটিতে টেস্টে সর্বশেষ জয় বাংলাদেশের।

তবে ম্যাথুস বলছেন, ঘরের মাঠে বাংলাদেশকে হারানো সহজ হবে না মোটেও, ‘ওরা ঘরের মাঠে অনেক ভালো দল। নিজেদের মাঠে ওরা বড় বড় দলকে হারিয়েছে। আগেও যেমন বলেছি, নিজেদের সেরা খেলাটাই খেলতে হবে ওখানে গিয়ে।’

গত বছরই বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ খেলেছে শ্রীলঙ্কা। পাল্লেকেলেতে দুই টেস্ট সিরিজের প্রথমটি ড্র করলেও বাংলাদেশ হেরেছিল দ্বিতীয়টি।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন