ওয়েস্ট ইন্ডিজের অনুশীলনে দুই পেসার শ্যানন গ্যাব্রিয়েল ও কেমার রোচ
ওয়েস্ট ইন্ডিজের অনুশীলনে দুই পেসার শ্যানন গ্যাব্রিয়েল ও কেমার রোচছবি: প্রথম আলো

২০০৪ সালে ভারত সফরের কথা। ভারতকে তাদের আঙিনায় হারাতে গ্লেন ম্যাকগ্রা ও জেসন গিলেস্পি বিশেষ পরিকল্পনা সাজান। মিডল স্টাম্প বরাবর বল করে ব্যাটসম্যানদের বিরক্ত করে আউট করার পরিকল্পনা।

শচীন টেন্ডুলকার, রাহুল দ্রাবিড়, বীরেন্দর শেবাগদের নিয়ে গড়া ব্যাটিং অর্ডারকে রান করা থেকে বিরত রাখতেই এই ফাঁদ পেতেছিল অস্ট্রেলিয়া।

অ্যাডাম গিলক্রিস্টের সেই অস্ট্রেলিয়া সফলও হয়। ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতে নেয় অস্ট্রেলিয়া। ভারতের মাটিতে সেবারই সর্বশেষ সিরিজ জয়ের স্বাদ পেয়েছিল অস্ট্রেলিয়া।

এবার বাংলাদেশ সফরে ক্যারিবীয় পেস বোলিং আক্রমণ প্রায় একই পরিকল্পনা নিয়ে এসেছে—উইকেটে যেহেতু প্রাণ নেই, বল করতে হবে সোজা সোজা। সাজাতে হবে লেগ অঞ্চলনির্ভর ফিল্ডিং। রান থামিয়ে ব্যাটসম্যানকে বিরক্ত করে আউট করার সেই অস্ট্রেলীয় পরিকল্পনা।

বিজ্ঞাপন

ক্যারিবীয়রা সেই ১৪ জানুয়ারি থেকে এই পরিকল্পনা অনুশীলন করছে। পেস বোলিং আক্রমণের নেতা কেমার রোচ তো কাভারে ফিল্ডার না রেখেই আজকাল অনুশীলন করেন।

লেগ সাইডে ছাতার মতো ফিল্ডিং সাজান। ব্যাটসম্যানদের সামনে এনে এলবিডব্লু ও বোল্ডের ফাঁদ পাতেন এভাবেই।

default-image

কাল অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে এ ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে রোচ বলছিলেন, ‘এখানে বোলারদের কাজটা কঠিন। উইকেট থেকে গতি ও সিম মুভমেন্ট পাওয়া যায় না। এখানে ধারাবাহিক হতে হবে। ঠিক জায়গায় বল করে যেতে হবে। সোজা লেংথে বল করা, ব্যাটসম্যানদের সামনের পায়ে চ্যালেঞ্জ করা। এটাই মূলত বাংলাদেশে সাফল্য পাওয়ার সেরা সুযোগ। বল নিয়েও অনেক কাজ করতে হবে। চেষ্টা করতে হবে দ্রুত রিভার্স সুইং করানোর। যেন বাংলাদেশি মিডল অর্ডারকে বিপদে ফেলা যায়।’

বাংলাদেশি টেস্ট ব্যাটিংয়ের হৃদয় আবার ওই মিডল অর্ডারই। মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসানরা আছেন। বাংলাদেশকে লড়াই করার রান করতে হলে সাফল্য পেতে হবে মিডল অর্ডারকে।

রোচ বলছিলেন, ‘আমাদের অনেক পরিকল্পনা যাচ্ছে এর মধ্যে। পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য অনেক কিছুই করতে হবে। আমাদের ধারাবাহিক হতে হবে। ভালো লড়াই করতে হবে। আমি এই পরিকল্পনার ব্যাপারে নিশ্চিত। অপেক্ষা করছি কেমন হয়। আমরা বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের চিনি। এই দলটা বেশ কয়েক বছর একসঙ্গে খেলছে। ওদের যারা মূল ক্রিকেটার, তারাই রান করছে। তাদের আমাদের ভালোই চেনা আছে।’

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন