বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

তবে টি-টোয়েন্টির অধিনায়কত্ব ছাড়লেও টেস্ট ও ওয়ানডে দলের অধিনায়ক থাকছেন কোহলি। টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক কে হবেন, সে ঘোষণা এখনো আসেনি। তবে দু-তিন দিন আগে কোহলির অধিনায়কত্ব ছাড়ার গুঞ্জন চাউর হওয়ার সময়েই ভারতের সংবাদমাধ্যম জানিয়েছিল, দায়িত্বটা পাবেন ৩৪ বছর বয়সী রোহিত শর্মা।

গুঞ্জনে অবশ্য কোহলির ওয়ানডে অধিনায়কত্ব ছাড়ার কথাও বলা ছিল। কিন্তু আপাতত শুধু টি-টোয়েন্টির অধিনায়কত্বই ছাড়ছেন ৩২ বছর বয়সী ব্যাটসম্যান। কারণ হিসেবে দেখিয়েছেন কাজের চাপকে!

default-image

‘কাজের চাপ কতটুকু নেওয়া উচিত, কতটুকু নেওয়া যায়, সেটা বুঝতে পারা অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটা ব্যাপার। ৮-৯ বছর ধরে তিন সংস্করণেই খেলা ও ৫-৬ বছর ধরে নিয়মিত অধিনায়কত্ব করে যাওয়ার কারণে যে রকম কাজের চাপ সইতে হয়েছে, এরপর এখন এসে আমার মনে হচ্ছে যে ভারতীয় দলকে টেস্ট এবং ওয়ানডেতে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য পুরোপুরি তৈরি হতে নিজেকে কিছুটা ছাড় দেওয়া উচিত’—বিবৃতিতে লিখেছেন কোহলি।

তবে অধিনায়কের দায়িত্ব ছাড়লেও ব্যাটসম্যান হিসেবে দলের প্রতি তাঁর নিবেদন নিয়ে কোনো প্রশ্ন সম্ভবত এমনিতেই উঠত না। কোহলি তবু ব্যাপারটা একটু খোলাসা করে জানালেন, ‘টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক হিসেবে যতটা সময় ছিলাম, পুরোটাতে নিজের সবটুকু দিয়েছি দলকে। সামনের দিনগুলোতে টি-টোয়েন্টি দলের একজন ব্যাটসম্যান হিসেবেও তা-ই করে যাব।’

default-image

এত বড় সিদ্ধান্ত তো আর একা নেওয়া যায় না। সিদ্ধান্তটা নেওয়ার আগে কার কার সঙ্গে আলাপ করেছেন, সেটিও বিবৃতিতে স্পষ্ট করে দিয়েছেন কোহলি, ‘অবশ্যই এমন একটা সিদ্ধান্তে পৌঁছানো অনেক সময়ের ব্যাপার। আমার কাছের মানুষ, (ভারতের কোচ) রবি ভাই এবং রোহিত—যে কিনা দলের নেতৃত্ব দেওয়া গ্রুপের গুরুত্বপূর্ণ অংশ, সবার সঙ্গে অনেক সময় নিয়ে বোঝা-শোনা ও আলোচনার পর সিদ্ধান্ত নিয়েছি, অক্টোবরে দুবাইয়ে এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর আমি টি-টোয়েন্টির অধিনায়কত্ব থেকে সরে দাঁড়াচ্ছি।’

সিদ্ধান্তের কথা বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী ও সচিব জয় শাহ এবং নির্বাচকদের জানিয়ে দিয়েছেন বলেও নিশ্চিত করেছেন কোহলি।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন