বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

এ ম্যাচে নিজেদের ভাগ্যটা নিজেদের হাতেই ছিল রাজস্থানের। শেষ দুই ম্যাচ জিতলেই নিশ্চিত প্লে-অফে খেলা। তবে মুম্বাইয়ের বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে ব্যাটিংয়ে গুবলেট পাকিয়ে ফেলল মোস্তাফিজুর রহমানের দল। শারজার কঠিন উইকেটকে আরও কঠিন বানিয়ে আগে ব্যাটিং করে ১০০ রানেরও বেশ আগেভাগেই থামল তারা।

টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ধীরলয়ে শুরু করলেও পাওয়ার প্লেতে ২ উইকেটে ৪১ রান তুলেছিল রাজস্থান। তবে এর পর থেকেই খেই হারিয়েছে তারা। মিডল অর্ডারে অধিনায়ক সঞ্জু স্যামসন, শিভাম দুবে ও গ্লেন ফিলিপসের কেউই দুই অঙ্ক ছুঁতে পারেননি, ভুগেছেন সবাই। মাঝে ডেভিড মিলার করেছেন ২৩ বলে ১৫ রান, আর রাহুল তেওয়াতিয়া ২০ বলে ১২। তবে তাঁরা দুজন শুধু ক্রিজ আঁকড়ে পড়ে থাকার কাজটাই করতে পেরেছেন কিছুক্ষণ।

default-image

৫.২ থেকে ১৮.১ ওভার—ইনিংসের এ সময়ে রাজস্থান ইনিংসে ছিল না একটিও বাউন্ডারি! এরপর চেতন সাকারিয়ার একটি চার ও মোস্তাফিজুর রহমানের একটি ছয়ে ৯০ পর্যন্ত যেতে পেরেছে রাজস্থান। মুম্বাইয়ের হয়ে সব কটি উইকেটই নিয়েছেন পেসাররা। আইপিএলের এ অংশে প্রথমবার খেলতে নেমে ১২ রানে ৩ উইকেট নিয়েছেন জেমস নিশাম। যশপ্রীত বুমরা ২ উইকেট নিতে খরচ করেছেন ১৪ রান। তবে মুম্বাইয়ের সেরা বোলার এদিন ন্যাথান কুল্টার-নাইল, ৪ ওভারে মাত্র ১৪ রান দিয়ে ৪ উইকেট নিয়েছেন এই অস্ট্রেলিয়ান পেসার।

বোলিংয়ে প্রথম ওভারই করতে আসেন মোস্তাফিজ। তবে তৃতীয় বলেই রোহিত শর্মা মারেন চার। পঞ্চম বলে তো মেরেছেন ছয়ই। সে ওভারে ওঠে ১৪ রান। রাজস্থানের অলৌকিক কিছু করার সম্ভাবনাও যেন মিলিয়ে গেছে সে ওভারেই।

default-image

‘অলিখিত রীতি’ মেনে মোস্তাফিজকে আবারও পাওয়ার প্লের শেষ ওভারে এনেছেন স্যামসন। সূর্যকুমারকে ফিরিয়েছেনও। তবে ততক্ষণে বেশ দেরি হয়ে গেছে রাজস্থানের। নবম ওভারে আবারও বোলিংয়ে আসা মোস্তাফিজকে পরপর দুই বলে চার-ছয় মেরেছেন ঈশান কিষাণ। রাজস্থানের বিপর্যয়ের দিনে ‘হারানো আত্মবিশ্বাস’ ফিরে পেয়েছেন মুম্বাই ওপেনার। এদিনই একাদশে ফিরেছেন এই বাঁহাতি। মুখোমুখি হওয়া প্রথম ৬ বলে কোনো রান করতে না পারলেও শেষ পর্যন্ত কিষাণ অপরাজিত ছিলেন ২৫ বলে ৫০ রান করে। আর ২.২ ওভারে মোস্তাফিজ গুনেছেন ৩২ রান।

রাজস্থানের পরের ম্যাচ কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে। খাতা-কলমে এখনো শেষ চারের সম্ভাবনা থাকলেও শুধু সে ম্যাচ জিতলেই হবে না রাজস্থানের, তাকিয়ে থাকতে হবে অন্য ম্যাচের দিকেও। অন্যদিকে এ ম্যাচে জিতে নিজের সম্ভাবনা আরেকটু জোরালো করল মুম্বাই। শেষ ম্যাচে যদি রাজস্থানের কাছে হারে কলকাতা, তাহলে হায়দরাবাদকে হারালেই শেষ চারে যাবে রোহিত শর্মার দল।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন