default-image

আগামী ২৩ অক্টোবর গ্রুপ পর্বের ম্যাচে মুখোমুখি হবে ভারত ও পাকিস্তান। সবশেষ দেখা হওয়ার ঠিক ৩৬৫তম দিনে এমসিজিতে আবার দেখা হচ্ছে তাদের। এ ম্যাচ নিয়ে আগ থেকেই আলোচনা শুরু হয়ে গেছে, যেমনটা হয়েছিল গত বছর বিশ্বকাপের আগেও। ২০২১ সালের ২৪ অক্টোবরের ম্যাচের আগে যেমন পাকিস্তানকে পাত্তা দিচ্ছিলেন না ভারতের কেউ। হরভজন তো ম্যাচটা আয়োজনের কোনো কারণই দেখছিলেন না।

স্টার স্পোর্টসকে বলেছিলেন, ‘আমি শোয়েব আখতারকে বলেছি, পাকিস্তানের এ ম্যাচ খেলার দরকার নেই; ওদের উচিত ম্যাচটা ওয়াকওভার দেওয়া। আপনারা খেলবেন, আবার হারবে এবং আবার মন খারাপ হবে। আমাদের দল পরিপূর্ণ, খুব শক্তিশালী এবং আপনাদের ছেলেদের খুব সহজে হারাবে।’

default-image

ম্যাচের আগে শোয়েব আখতার নিজেও পাকিস্তানের খুব একটা সুযোগ দেখেননি। কিন্তু ম্যাচে সবাইকে স্তব্ধ করে দিয়েছিল পাকিস্তান। ভারতের টপ অর্ডার ব্যর্থ হয়েছিল, বোলাররাও পারেননি দলের বড় পরাজয় এড়াতে। পাকিস্তানের সমর্থকেরা তাই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে হরভজনকে খোঁচা মেরেছেন সুযোগ বুঝে।

এ বছর তাই সাবধান হয়েছেন হরভজন। এ বছর আর ম্যাচ নিয়ে কোনো ভবিষ্যদ্বাণী করতে রাজি নন টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডে বিশ্বকাপ জেতা অফ স্পিনার। শোয়েব আখতারের সঙ্গে আড্ডার ছলে বলেন, ‘আমাদের সামনে আরেকটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। এই বছর আমি কোনো বিবৃতি দেব না এবং ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে কে জিতবে, এ নিয়ে কথা বলব না। মউকা মউকা বলেন আর যা–ই বলেন, দেখি না কী হয়। কারণ, গতবার বলার পর খুব বাজে কিছু হয়েছে।’

শোয়েব আখতারও হরভজনকে ভবিষ্যদ্বাণী না করতে বলে দিয়েছেন। ভারতীয় স্পিনারও এই প্রস্তাবে সায় দিয়েছেন।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন