ভারত সিরিজ শেষেই বিদায় বলতে পারেন অ্যান্ডারসন

বিরাট কোহলির উইকেট নেওয়ার পর জেমস অ্যান্ডারসনের উল্লাসরয়টার্স

৩৯ পেরিয়ে গেছেন গত জুলাইয়ে। তবে জেমস অ্যান্ডারসন ছুটছেন এখনো। সাফল্যের ক্ষুধা এ বয়সে এসেও যেন এতটুকু কমেনি টেস্ট ইতিহাসের সবচেয়ে সফল পেসারের। এ বছরও এখন পর্যন্ত ২০.৯৬ গড়ে ৩০ উইকেট নিয়েছেন, ভারতের বিপক্ষে চলমান সিরিজে ৩ ম্যাচে ১৩ উইকেট নিয়েছেন ১৯.২৩ গড়ে। অ্যান্ডারসন শিগগির থামছেন না বলেই মনে হয়! তবে সাবেক ইংল্যান্ড সতীর্থ স্টিভ হার্মিসনের মনে হচ্ছে অন্য রকম। হার্মিসন বলছেন, ভারতের বিপক্ষে সিরিজ শেষেই বিদায় নেবেন অ্যান্ডারসন!

ওভালে ২ সেপ্টেম্বর শুরু হবে ভারতের বিপক্ষে ইংল্যান্ডের চতুর্থ টেস্ট। এরপর সর্বশেষ ও পঞ্চম টেস্ট হবে ওল্ড ট্রাফোর্ডে। এমনিতে ওল্ড ট্রাফোর্ড অ্যান্ডারসনের কাউন্টি ল্যাঙ্কাশায়ারের মাঠ। সে মাঠের একটি প্রান্তও আছে অ্যান্ডারসনের নামে। ঘরের মাঠকে বিদায়ের মঞ্চ হিসেবে বেছে নিতে পারেন তিনি, হার্মিসন টকস্পোর্টকে বলেছেন এমনই, ‘আমার কেন জানি মনে হয়, ওল্ড ট্রাফোর্ডে জিমি অ্যান্ডারসন অবসর নেবে। আগেও বলেছি, আমার কেন যেন মনে হচ্ছে, এ গ্রীষ্মের শেষেই অবসর নিতে পারে সে।’

বয়স ৩৯ পেরিয়ে গেলেও ছুটছেন অ্যান্ডারসন
ছবি: এএফপি

এ বছর এমনিতেই বেশ ঠাসা সূচি ইংল্যান্ডের। শ্রীলঙ্কা ও ভারত সফরের পর দেশের মাটিতে নিউজিল্যান্ডের পর এখন তারা খেলছে ভারতের বিপক্ষে। বছরের শেষ দিকে হওয়ার কথা অ্যাশেজ। তবে করোনাভাইরাসের কারণে অ্যাশেজ নিয়ে আছে অনিশ্চয়তা। অস্ট্রেলিয়ায় কড়াকড়ির কারণে ইংল্যান্ড ক্রিকেটাররা পরিবারকে সঙ্গে নিতে পারবেন কি না, সেটা নিশ্চিত নন এখনো।

হার্মিসন বলছেন, অ্যাশেজ নিয়ে অনিশ্চয়তার কারণেই ভারতের বিপক্ষেই বিদায় বলতে পারেন অ্যান্ডারসন, ‘আমার মনে হয় না অ্যাশেজ হবে। অ্যাশেজ হলেও আগের মতো করে হবে না। আমার মনে হয়, জিমি এসব দেখে বলবে, “ওভালে যদি ভালো বোলিং করি। এরপর ওল্ড ট্রাফোর্ড বাকি থাকবে। আমার বর্ণিল ক্যারিয়ারের শেষটা এর চেয়ে ভালো কীভাবে হতে পারে, যখন আমার নামে হওয়া প্রান্ত থেকে বোলিং করেই আমি বিরাট কোহলিকে আউট করতে পারছি! আর মাস ছয়েকের মাঝে তো অ্যাশেজও নেই!”’

নিজে অ্যান্ডারসন হলে এর চেয়ে ভালোভাবে শেষ করার উপলক্ষ আর পেতেন না বলেই মনে করেন হার্মিসন। পরের গ্রীষ্ম পর্যন্ত অ্যান্ডারসন অপেক্ষা করবেন না বলেও মনে হয় তাঁর।

স্টিভ হার্মিসন
ফাইল ছবি : এএফপি

অবশ্য ভারতের বিপক্ষে সিরিজ শুরুর আগে নিজের বিদায়ের কথা উড়িয়ে দিয়েছিলেন অ্যান্ডারসন নিজেই, ‘অবশ্যই না! আমার মনে হয়, অন্য যেকোনো সময়ের মতোই ভালো বোলিং করছি আমি। শারীরিক দিক দিয়ে দারুণ বোধ করছি আমি। ভারতের বিপক্ষে সিরিজে খেলতে মুখিয়ে আছি। এরপর সবকিছু নিয়ে ভাবব।’

ক্যারিয়ারজুড়েই বর্তমান নিয়ে চিন্তা করে সফল হয়েছেন বলেও জানিয়েছিলেন অ্যান্ডারসন, ‘ক্যারিয়ারজুড়েই এ কাজ সবচেয়ে ভালোভাবে করে এসেছি আমি—এ মুহূর্তে কী ঘটছে, শুধু সেদিকেই নজর দিয়ে। আমার মনে হয় আমি ভালো বোলিং করছি অন্য যেকোনো সময়ের মতোই।’